September 27, 2021, 2:18 pm
Headlines
বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গবন্ধুকন্যা ব্যতীত বাংলাদেশের উন্নয়ন ও অর্জনের কোনো ইতিহাস নেই : তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী বিশ্ব জলাতঙ্ক দিবসে রাষ্ট্রপতির বাণী  বিশ্ব জলাতঙ্ক দিবসে প্রধানমন্ত্রীর বাণী আন্তর্জাতিক তথ্য অধিকার দিবসে রাষ্ট্রপতির বাণী  আন্তর্জাতিক তথ্য অধিকার দিবসে প্রধানমন্ত্রীর বাণী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিন উপলক্ষ্যে রাষ্ট্রপতির বাণী British State Minister for Foreign Affairs calls on Foreign Minister Momen পররাষ্ট্রমন্ত্রীর নতুন বই ‘জাতির উদ্দেশে ভাষণ : শেখ হাসিনা’ SSC exams start on Nov 14, HSC on Dec 2 রাতে ফাইজারের আরো ২৫ লাখ ডোজ ভ্যাকসিন দেশে আসছে September 28 : Prime Minister Sheikh Hasina turns 75 রোবটিক্স বিলাসিতা নয় বরং নিত্য প্রয়োজনীয় : পলক জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা জন্মনিবন্ধন সনদের মাধ্যমে ভ্যাকসিন নিবন্ধন করতে পারবেন Mustafa Osman Turan termed icddr,b’s life-saving research as inspiring আগামীকাল ‘শুভ জন্মদিন আধুনিক বাংলাদেশের রুপকার জননেত্রী শেখ হাসিনা’ অনুষ্ঠান সরাসরি সম্প্রচার করবে বাংলাদেশ বেতার বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে ওজোপাডিকোর নতুন এমডি`র শ্রদ্ধা ইলিশ আহরণ নিষিদ্ধকালে জেলেদের জন্য ১১ হাজার ১১৯ মেট্রিক টন ভিজিএফ চাল বরাদ্দ করোনকালে পর্যটন খাতের জন্য ১ হাজার ৫০০ কোটি টাকা প্রণোদনা দিয়েছে সরকার : পর্যটন প্রতিমন্ত্রী পর্যটন মানুষকে ইতিহাস-ঐতিহ্যের বিষয়ে সচেতন করে : মনিরুজ্জামান তালুকদার বিদেশ থেকে ফিরে আসা নারী শ্রমিকদের অসহায় অবস্থা নিরসনে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়া প্রয়োজন : বিলস্’র গবেষণা
Treanding
বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গবন্ধুকন্যা ব্যতীত বাংলাদেশের উন্নয়ন ও অর্জনের কোনো ইতিহাস নেই : তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিন উপলক্ষ্যে রাষ্ট্রপতির বাণী British State Minister for Foreign Affairs calls on Foreign Minister Momen Mustafa Osman Turan termed icddr,b’s life-saving research as inspiring আগামীকাল ‘শুভ জন্মদিন আধুনিক বাংলাদেশের রুপকার জননেত্রী শেখ হাসিনা’ অনুষ্ঠান সরাসরি সম্প্রচার করবে বাংলাদেশ বেতার বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে ওজোপাডিকোর নতুন এমডি`র শ্রদ্ধা ইলিশ আহরণ নিষিদ্ধকালে জেলেদের জন্য ১১ হাজার ১১৯ মেট্রিক টন ভিজিএফ চাল বরাদ্দ পর্যটন মানুষকে ইতিহাস-ঐতিহ্যের বিষয়ে সচেতন করে : মনিরুজ্জামান তালুকদার বিদেশ থেকে ফিরে আসা নারী শ্রমিকদের অসহায় অবস্থা নিরসনে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়া প্রয়োজন : বিলস্’র গবেষণা Samsung brings NEO QLED TV for stunning cinematic experience Energypac cleans up river on the occasion of  “World Rivers Day” Is the top 1 smartphone brand getting ignored – Which brand is that?  রোয়াংছড়িতে গৃহহীনদের নতুন ঘরের চাবি হস্তান্তর করেছেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রী করোনা মহামারি মোকাবিলায় সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে : সমাজকল্যাণ সচিব বিদেশে অপপ্রচারকারীর বিরুদ্ধে অনলাইনে সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানালেন শিক্ষা উপমন্ত্রী   ই-কমার্স বিষয়ে সচেতনতা সৃষ্টির জন্য সাংবাদিকদের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ : বাণিজ্যমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু’র খুনী নূর চৌধুরীকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানোর দাবি তথ্য প্রতিমন্ত্রীর আগামীকাল আরো ২৫ লাখ ডোজ ফাইজার ভ্যাকসিন দেশে আসছে সোনারগাঁও জাদুঘর সম্প্রসারণ প্রকল্পের নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন Prime Minister’s Message on the occasion of the World Tourism Day-2021

জনগণের ভোগান্তি লাঘবে সম্পূর্ণ ভূমি ব্যবস্থাকে ডিজিটালাইজড করা হচ্ছে : প্রধানমন্ত্রী

Bangladesh Beyond
  • Updated on Wednesday, September 8, 2021
  • 44 Impressed

জনগণের ভোগান্তি লাঘবে সম্পূর্ণ ভূমি ব্যবস্থাকে ডিজিটালাইজড করা হচ্ছে : প্রধানমন্ত্রী

 

ঢাকা, ৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১ (বাসস) :

 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, সম্পূর্ণ ভূমি সেবাকে দেশের জনগণের হাতের মুঠোয় নিয়ে আসার মাধ্যমে ভোগান্তি লাঘবে সরকার সম্পূর্ণ ভূমি ব্যবস্থাকে ডিজিটালাইজড করার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে।
শেখ হাসিনা বলেন, ‘মানুষ যেন ভোগান্তির শিকার না হতে হয়, দুয়ারে দুয়ারে ঘুরে বেড়াতে না হয়। ভূমি সেবা যেন হাতের মুঠোয় পায় সেই ব্যবস্থাই আমরা করতে চেয়েছি।’
সরকার প্রধান ভূমি মন্ত্রণালয়ের সেবাদানকারী সকল দপ্তর ও সংস্থাকে একই ছাদের নীচে এনে জনগণকে এক জায়গা থেকে সকল সেবা প্রদানের মাধ্যমে ‘ওয়ানস্টপ সার্ভিস’ নিশ্চিত করতে রাজধানীর তেজগাঁওয়ে ‘ভূমি ভবন’ উদ্বোধনকালে একথা বলেন।
তিনি আজ সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে ভূমি মন্ত্রণালয় আয়োজিত মূল অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি অংশগ্রহণ করেন।
প্রধানমন্ত্রী অনুষ্ঠান থেকে ভূমি ভবন ছাড়াও উপজেলা ও ইউনিয়নের ভূমি অফিস, অনলাইন ভূমি উন্নয়ন কর পরিশোধ কার্যক্রম এবং ভূমি ডাটা ব্যাংকের উদ্বোধন করেন।
শেখ হাসিনা অনুষ্ঠান থেকে ৯৯৫টি ইউনিয়ন ভূমি অফিস এবং ১২৯টি উপজেলা ভূমি অফিস উদ্বোধন করেন।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, তাঁর সরকার ২০৪১ সালের মধ্যে শতভাগ মিউট্রেশন সম্পন্ন করার মাধ্যমে ভূমি ব্যবস্থা সম্পূর্ণ ডিজিটালাইজড করার লক্ষ্য নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। কেননা, মানুষ যেন অযথা হয়রানির শিকার না হন। মানুষ যেন ভোগান্তির শিকার না হতে হয়, দুয়ারে দুয়ারে ঘুরে বেড়াতে না হয়। ভূমি সেবা যেন হাতের মুঠোয় পায় সেই ব্যবস্থাই আমরা করতে চেয়েছি।
তিনি বলেন, হাতের মুঠোয় ভুমি সেবা নিশ্চিত করতে অনলাইনে খতিয়ান সংগ্রহ, উত্তরাধিকার ক্যালকুলেটর, অনলাইন ডাটাবেজসহ ভূমিসেবার সকল ক্ষেত্রে অধিকতর ডিজিটাল প্রযুক্তি ব্যবহার করা হচ্ছে। ই-মিউটেশন বাস্তবায়নের স্বীকৃতিস্বরূপ ভূমি মন্ত্রণালয় জাতিসংঘের ‘ইউনাইটেড নেশন্স পাবলিক সার্ভিস এ্যাওয়ার্ড-২০২০’ অর্জন করেছে।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, জাতিসংঘের এ পুরস্কার বাংলাদেশে এই প্রথম। এ স্বীকৃতি ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ গড়ার প্রত্যয়কে আরও গতিশীল করেছে এবং বিশ্ব দরবারে আমাদের মর্যাদা অধিকতর সুসংহত হয়েছে।
ভূমি সচিব মোস্তাফিজুর রহমান অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তৃতা করেন এবং ভূমি মšী¿ সাইফুজ্জামান চৌধুরী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন।
অনুষ্ঠানে ভূমি মন্ত্রণালয়ের কার্যক্রম এবং প্রকল্পগুলোর ওপর পৃথক ভিডিও চিত্র পরিবেশিত হয়।
ভূমি মন্ত্রণালয়ের আওতাভুক্ত ভূমি সংস্কার বোর্ড, ভূমি আপিল বোর্ড এবং ভূমি রেকর্ড ও জরিপ অধিদপ্তর ঢাকা শহরের ভিন্ন ভিন্ন জায়গায় অবস্থিত। ভূমি মন্ত্রণালয়ের আওতাভুক্ত বিভিন্ন দপ্তর, সংস্থা ছাড়াও ভূমি মন্ত্রণালয়ের আওতায় বাস্তবায়নাধীন বিভিন্ন প্রকল্পের কার্যালয় ও একটি আধুনিক রেকর্ড রুমের সংস্থান এ ভূমি ভবন কমপ্লেক্সে রাখা হয়েছে। উক্ত অফিসগুলো একই ভবনে অবস্থানের ফলে ভূমি সংক্রান্ত সেবাদান ও সেবাগ্রহণ প্রক্রিয়া সহজতর হবে।
ভূমি ভবন কমপ্লেক্সে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরাল, বঙ্গবন্ধু কর্নার ও কর্মজীবী মায়েদের সুবিধার্থে একটি ডে-কেয়ার সেন্টার স্থাপন করা হয়েছে।
প্রকল্পটির প্রাক্কলিত ব্যয় প্রায় ১৮৪ কোটি টাকা। নির্মিত ভবনটি ২টি বেজমেন্টসহ মোট ১৩ তলা বিশিষ্ট মূল ভবনটির নির্মাণ এরিয়া প্রায় ৩২ হাজার ২শ’ বর্গ মিটার।
উল্লেখ্য, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১৪ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর ভূমি মন্ত্রণালয় পরিদর্শনের সময় ভূমি মন্ত্রণালয়ের সেবাদানকারী সকল দপ্তর ও সংস্থাকে একই ছাদের নীচে এনে জনগণকে ‘এক জায়গায় সকল সেবা’ প্রদানের জন্য ব্যবস্থা গ্রহণ করতে নির্দেশ দেন।
তাঁর নির্দেশনার পরিপ্রেক্ষিতে একই স্থানে ভূমি মন্ত্রণালয়ের আওতাভুক্ত দপ্তর ও সংস্থাসমূহের স্থান সংকুলানের জন্য ভূমি ভবন কমপ্লেক্স নির্মাণের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, তাঁর সরকার ভূমি ব্যবস্থাপনাকে আরো উন্নত করতে চায়। কেননা, অতীতে এক একটা ভূমি অফিসের জীর্ণ দশা ছিল।
তিনি বলেন, আমাদের আগে তো অনেকেই ক্ষমতায় এসেছে। কেন এই ব্যাপারে কোন সংস্কার করা হয়নি সেটাই বড় প্রশ্ন।
এ সময় তিনি ২০১৩ এবং এর পরবর্তী সময়ে বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সন্ত্রাস-নৈরাজ্য, আগুন দিয়ে মানুষ হত্যা এবং ভুমি অফিস পুড়িয়ে রেকর্ড বিনষ্টের তীব্র সমালোচনা করেন।
শেখ হাসিনা বলেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর ভূমি ব্যবস্থাপনাকে উন্নত করার উদ্যোগ নেয়, কিন্তু বিএনপি জামায়াত জোট ২০১৩ সালে অগ্নিসন্ত্রাস শুরু করে এবং দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে অনেকগুলো ভূমি অফিস জ্বালিয়ে পুড়িয়ে দেয়।
সরকার প্রধান বলেন, তারা শুধু ভূমি অফিস পোড়ায়নি চলন্ত বাসে যাত্রীরা যাচ্ছে সেখানে নারী,পুরুষ,শিশু সবাই রয়েছে। সেই বাসে আগুন দিয়ে জীবন্ত মানুষগুলোকে পুড়িয়ে মেরেছে। সিএনজি চালিয়ে যাচ্ছে ড্রাইভার তাকে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে মেরেছে। গাড়ির ভিতর থেকে ড্রাইভারকে টেনে বের করে তার গায়ে পেট্রোল ঢেলে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে হত্যা করেছে। প্রায় ৬টি ভূমি অফিসসহ অনেক ভূমি অফিস তারা নষ্ট করে দেয় এবং সে গুলো পুড়িয়ে দেয়।
ভ’মি অফিস পোড়ানো বন্ধে তাঁর কঠোর হুশিয়ারির পর সেটা বন্ধ হয়, উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, আসলে বিএনপি জামায়াত এরা তো আর মানুষের জন্য কাজ করে না। এরা ক্ষমতায় এসেছিল অবৈধভাবে দখলকারীর হাত দিয়ে। একটা মিলিটারি ডিক্টেটরের হাতে তৈরি করা এই সংগঠন। কাজেই মানুষের প্রতি এদের কোন দায়িত্ববোধও নেই, দেশের জন্যও নেই।  ক্ষমতায় থেকে  টাকা বানানো, জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস,দুর্নীতি এটাই তাদের কাজ এবং সেটাই তারা করেছে।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, কর্মকর্তা সংকটের কারণে জনগণের সর্বোচ্চ সেবা নিশ্চিত করা এক সময় দুরূহ ছিল যেটা তাঁর সরকার দূর করেছে।
তিনি বলেন, প্রায় শতভাগ উপজেলায় সহকারী কমিশনার (ভূমি) পদায়ন এবং তাদের যানবাহনের সুবিধা প্রদান করায় বর্তমানে ভূমি প্রশাসনে গতিশীলতা বৃদ্ধি পেয়েছে। জনগণকে কাক্সিক্ষত সেবা প্রদান করা সম্ভব হচ্ছে।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, সরকার ইতোমধ্যে অনলাইনে খতিয়ান সংগ্রহ করার সিস্টেম বাস্তবায়ন করেছে। জমির মালিক ঘরে বসেই খতিয়ান সংগ্রহ করতে পারছে। সারা বাংলাদেশের প্রায় ৪ কোটি ৯২ লাখ ডিজিটালাইজড খতিয়ান নিয়ে তৈরি করা হয়েছে ভার্চুয়াল রেকর্ড রুম। এই ভার্চুয়াল রেকর্ড রুম থেকে বিনা পয়সায় যে কেউ তার কাক্সিক্ষত খতিয়ান সংগ্রহ করতে পারছে।
এ প্রসঙ্গে সারাদেশে ডিজিটাল সেন্টার স্থাপন এবং পোষ্ট অফিসগুলোকে তাঁর সরকারের জিজিটাইজড করে দেওয়ার কথাও তিনি উল্লেখ করেন।
জাতির পিতার করে যাওয়া পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা অনুসরণ করে এবং পাশাপাশি দীর্ঘ মেয়াদি প্রেক্ষিত পরিকল্পনার মাধ্যমে তাঁর সরকার দেশের উন্নয়ন করছে। বিএনপি’র মত এডহক ভিত্তিতে পরিকল্পনা গ্রহণ ও বাস্তবায়ন  করছেন না বলেই দেশ পরিকল্পিত লক্ষ্য অর্জনে এগিয়ে যাচ্ছে, বলেন প্রধানমন্ত্রী।
তিনি বলেন, ভূমি ব্যবস্থাপনাকে উন্নত ও বিশ্বমানের করার লক্ষ্যে ভূমি ব্যবস্থাপনা অটোমেশন প্রকল্প, ডিজিটাল পদ্ধতিতে ভূমি জরিপ করার জন্য ভূমি রেকর্ড ও জরিপ অধিদপ্তরের পরিচালনা সক্ষমতা শক্তিশালীকরণ প্রকল্প এবং মৌজা ও প্লট ভিত্তিক জাতীয় ডিজিটাল ভূমি জোনিং প্রকল্প- আগামী কয়েক বছরের মধ্যে বাস্তবায়িত হবে। এই ৩টি প্রকল্পের কাজ শেষ হলে বাংলাদেশের ভূমি ব্যবস্থাপনায় যুগান্তকারী ও আমূল পরিবর্তন সাধিত হবে। আর মানুষও এর সেবা পাবে।
আজ ভূমি মন্ত্রণালয় কর্তৃক বাস্তবায়িত ৫টি প্রকল্পের উদ্বোধন হচ্ছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, প্রতিটি প্রকল্প ভূমিসেবা প্রদান সহজীকরণের মাধ্যমে জনগণের দোড়গোড়ায় সেবা পৌঁছে দিতে অগ্রণী ভূমিকা রাখবে।
তিনি বলেন, ভূমি উন্নয়ন কর পরিশোধ প্রক্রিয়া সহজীকরণ অর্থাৎ ঘরে বসেই যাতে জমির মালিক ভূমি উন্নয়ন কর পরিশোধ করতে পারেন, তা নিশ্চিত করতে বাস্তবায়ন করা হচ্ছে অনলাইন ভূমি উন্নয়ন কর পরিশোধের ডিজিটাল পদ্ধতি। এর মাধ্যমে কর পরিশোধে জনগণের ভোগান্তি আর থাকবে না।
সারা বাংলাদেশে প্রায় ৩ কোটি হোল্ডিংয়ের মধ্যে প্রায় ১ কোটি হোল্ডিংয়ের ডাটা এন্ট্রির কাজ সম্পন্ন হয়েছে এবং অবশিষ্ট হোল্ডিং এন্ট্রির কাজ চলমান রয়েছে উল্লেখ করে সরকার প্রধান বলেন, প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে একজন নাগরিক যে কোন স্থান থেকে যে কোন সময় ভূমি উন্নয়ন কর সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য জানতে পারবেন। অনলাইনে তা পরিশোধ করতে পারবেন এবং অনলাইনে দাখিলা পেয়ে যাবেন। এতে তাদের সময়, খরচ বাঁচবে এবং জনগন হয়রানি থেকে রক্ষা পাবেন।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, এছাড়াও ইউনিয়ন/পৌর ভূমি অফিসের মৌজাভিত্তিক সকল তথ্যও সংরক্ষিত থাকবে বিধায় নির্ভুলভাবে ভূমি উন্নয়ন করের দাবি নির্ধারণ করা সম্ভব হবে। সর্বোপরি, অর্থ বিভাগের অটোমেটেড চালান সিস্টেমের মাধ্যমে আদায়কৃত ভূমি উন্নয়ন কর সরাসরি সরকারি কোষাগারে জমা হবে।
তিনি বলেন, এর ফলে অতীতে ভূমি উন্নয়ন কর সরাসরি জমার বিধান না থাকায় ‘কিছু যেত কিছু যেতনা। এখন আর সেটা হবে না।’
প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশের সায়রাতমহাল অর্থাৎ জল মহাল, বালু মহাল, চা বাগান, লবন মহাল, চিংড়ি মহাল, হাটবাজার; খাসজমি এবং অধিগ্রহণকৃত জমির ডিজিটাল ডাটাবেজ না থাকার কারণে যে কোন তথ্য প্রাপ্তিতে দীর্ঘসূত্রিতা তৈরি হতো। অনেক সময় আমরা জানতেই পারতাম না যে কি পরিমাণ জমি এ মহালের অন্তর্ভুক্ত। সরকার সকল প্রকার সায়রাতমহল ও অধিগ্রহণকৃত জমির অনলাইন ডাটাবেজ তৈরির কাজ সম্পন্ন করেছে। এর ফলে ভবিষ্যতে সরকারের উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন আরো সহজতর হবে। পাশাপাশি অনলাইন ডাটাবেজ থাকার কারণে অধিগ্রহণকৃত ভ’মি ব্যবহারেও আর কোন সমস্যা থাকবে না।
তিনি বলেন, মানুষের সেবা নিশ্চিত করতে ইউনিয়ন পর্যায়ে ১ হাজার ৪৯৮টি ভূমি অফিস নির্মাণের প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে ৯৯৫টি ইউনিয়ন ভূমি অফিসের নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এর মধ্য দিয়ে একদিকে গ্রামের মানুষের সেবা প্রদানের যথাযথ দাপ্তরিক পরিবেশ তৈরি হবে, অন্য দিকে রেকর্ডসমূহ যথাযথভাবে সংরক্ষণ করা সম্ভব হবে। এই প্রেক্ষাপটে ১৩৯টি উপজেলা ভূমি অফিস নির্মাণের কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়। ইতোমধ্যে ১২৯টি ভবনের নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হয়েছে।
তিনি প্রত্যেকটি উপজেলার ভ’মি অফিসগুলোকে দ্রুত গড়ে তোলার ওপরও গুরুত্বারোপ করেন।
‘আওয়ামী লীগ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের হাতে গড়া একটি সংগঠন,’ উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই সংগঠনকে নিয়েই জাতির পিতা দেশের মানুষকে ঐক্যবদ্ধ করে আমাদেরকে স্বাধীনতা এনে দিয়েছেন। কাজেই আওয়ামী লীগ যতদিন ক্ষমতায় থাকে দেশের মানুষ সেবা পায়, দেশের উন্নতি হয়, দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হয়।

Social

More News