October 22, 2021, 1:39 pm
Headlines
শিশুদের সংস্কৃতিচর্চা সম্প্রীতির সোপান : তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী যুব প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের গ্লোবাল আইটি চ্যালেঞ্জে বাংলাদেশের সাফল্য সহসাই ডাকসেবা কাঙ্ক্ষিত মানে উন্নীত হবে : টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী ৬টি রেলওয়ে স্টেশনের আধুনিকায়নের কাজ উদ্বোধন করলেন রেলপথ মন্ত্রী আরো সুরক্ষিত ও নিরাপদ হবে দেশের আকাশসীমা ও বিমান চলাচল ব্যবস্থা : বিমান প্রতিমন্ত্রী নতুন ৩৭টি সেতুর উদ্বোধন করলেন সেতুমন্ত্রী তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয় কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন প্রকল্পসমূহ দ্রুত বাস্তবায়নের নির্দেশ মন্ত্রীর ২২ অক্টোবর  কোভিড–১৯ সংক্রান্ত সর্বশেষ প্রতিবেদন দুর্যোগে প্রকৌশলীগণ সম্মুখ যোদ্ধার মতো কাজ করে যাচ্ছেন : পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধাদের চিকিৎসা দিতে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় ও বারডেম হাসপাতালের সমঝোতা স্মারক নবায়ন সিউলে বাংলাদেশ দূতাবাসে ই-পাসপোর্ট কার্যক্রমের উদ্বোধন দেশে উৎপাদিত ফাইভ-জি মোবাইল ফোন সেট যুক্তরাষ্ট্রে যাচ্ছে : মোস্তাফা জব্বার পবিত্র কোরআন অবমাননাকে কেন্দ্র করে সংঘটিত অপ্রীতিকর ঘটনা সম্পর্কে পুলিশের বক্তব্য ঐক্যবদ্ধ থাকলে কোন অপশক্তিই দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করতে পারবেনা : খাদ্যমন্ত্রী মেরিন ফিশারিজ একাডেমির ক্যাডেটদের দেশের অ্যাম্বাসেডর হতে হবে : মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী ২১ অক্টোবর  কোভিড–১৯ সংক্রান্ত সর্বশেষ প্রতিবেদন জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবসে প্রধানমন্ত্রীর বাণী জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবসে রাষ্ট্রপতির বাণী Foreign Minister Sergey Lavrov’s remarks at the third meeting of the Moscow format consultations on Afghanistan সরকারি সেবায় প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর অন্তর্ভুক্তিতে বাধা : ১০ দফা সুপারিশ টিআইবির 
Treanding
৬টি রেলওয়ে স্টেশনের আধুনিকায়নের কাজ উদ্বোধন করলেন রেলপথ মন্ত্রী আরো সুরক্ষিত ও নিরাপদ হবে দেশের আকাশসীমা ও বিমান চলাচল ব্যবস্থা : বিমান প্রতিমন্ত্রী নতুন ৩৭টি সেতুর উদ্বোধন করলেন সেতুমন্ত্রী তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয় কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন প্রকল্পসমূহ দ্রুত বাস্তবায়নের নির্দেশ মন্ত্রীর সিউলে বাংলাদেশ দূতাবাসে ই-পাসপোর্ট কার্যক্রমের উদ্বোধন দেশে উৎপাদিত ফাইভ-জি মোবাইল ফোন সেট যুক্তরাষ্ট্রে যাচ্ছে : মোস্তাফা জব্বার পবিত্র কোরআন অবমাননাকে কেন্দ্র করে সংঘটিত অপ্রীতিকর ঘটনা সম্পর্কে পুলিশের বক্তব্য ঐক্যবদ্ধ থাকলে কোন অপশক্তিই দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করতে পারবেনা : খাদ্যমন্ত্রী মেরিন ফিশারিজ একাডেমির ক্যাডেটদের দেশের অ্যাম্বাসেডর হতে হবে : মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী Foreign Minister Sergey Lavrov’s remarks at the third meeting of the Moscow format consultations on Afghanistan সরকারি সেবায় প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর অন্তর্ভুক্তিতে বাধা : ১০ দফা সুপারিশ টিআইবির  Sweden will help Bangladesh to fight climate change : Swedish Ambassador CSOs demanded inclusive process from government to strengthen country’s interest in CoP 26 সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টকারী জাতির শত্রু : মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী সুন্দরবনের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে স্ট্র্যাটেজিক এনভায়রনমেন্টাল ম্যানেজমেন্ট প্ল্যান করেছে সরকার : পরিবেশ ও বনমন্ত্রী বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য ৩৬ লক্ষ টাকা ও শুকনো খাবার বরাদ্দ LDCs need Productive capacity building for sustainable graduation : Ambassador Rabab Fatima ফ্রাঙ্কফুর্ট আন্তর্জাতিক বইমেলায় বাংলাদেশ স্টলের উদ্বোধন করলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী ইসলামের নামে ফেৎনা-বিভেদ সৃষ্টিকারীদের রুখে দাঁড়ান :তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়ি ঘরে অগ্নিসংযোগকারীদের  অবশ্যই দৃষ্টান্তমূলক বিচারের মুখোমুখি হতে হবে : ধর্ম প্রতিমন্ত্রী

বাংলাদেশের অপার সম্ভাবনা হাওর পর্যটনে

Bangladesh Beyond
  • Updated on Tuesday, October 5, 2021
  • 163 Impressed

বাংলাদেশের অপার সম্ভাবনা হাওর পর্যটনে

 

 

ঢাকা ৫ অক্টোবর ২০২১ :

 

প্রাকৃতিক আকর্ষণ হল স্থল এবং প্রাকৃতিক বৈশিষ্ট্যের সমন্বয় যা পর্যটনের সফলতার ফলকের জন্য  উৎসাহস্বরূপ । পৃথিবীর চারিদিকে আকর্ষণের সীমাহীন বৈচিত্র্য রয়েছে এবং প্রতি আকর্ষণের ভিন্ন ভিন্ন বৈশিষ্ট্য রয়েছে যা পর্যটনকে করে সমৃদ্ধা।

মরুভূমি, মেরু অঞ্চল, বৃষ্টিভূমি, উঁচু জেলা, বনাঞ্চল,, পর্বত, উপকূলরেখা, জলাভূমি, মহাসাগর , পশু – পাখি, জীব – জন্তু  এবং গাছপালা – এসব মিলিয়েই গড়ে উঠে প্রাকৃতিক আকর্ষণের ভাণ্ডার।

বাংলাদেশের দৃষ্টিকোণ থেকে পর্যবেক্ষণ করলে অসম পর্বতমালা, দীর্ঘতম উপকূলরেখা, ছয় ঋতু পর্যটন ব্যবসায়ের অগ্রগতির জন্য যেসব মাধ্যমগুলো গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে পরিগণিত হয় তার সাথে সামঞ্জস্যতায় পরিপূর্ণ। বাংলাদেশে অভ্যন্তরীন পর্যটকের সংখ্যা ১.৫ কোটি কিন্তু বিদেশি পর্যটকের সংখ্যা ২ লাখের মত।

কৌশলগত পর্যালোচনার বিবেচনা  ২০১৯- ২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত ব্যয় পরিকল্পনা অনুসারে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের জন্য ১,৫০০ কোটি টাকার উপরে নির্ধারণ করা হয়েছিল এবং আগের বছরের প্রস্তাবিত ব্যয়ের পরিকল্পনার চেয়ে 8২১ কোটি টাকার ও বেশি। করোনার করাল থাবা থেকে এ শিল্পকে বাচাতে ১০০০ কোটি টাকা বরাদ্দ হয়েছে।

বাংলাদেশে ঘুরতে আসা অতিথিরা চারিদিকে প্রকৃতির কোমল ছোয়া উপভোগ করেন এবং দক্ষিণাঞ্চলের মানুষদের অন্যরকম জীবনযাপন, বান্দরবান ও খাগড়াছড়ির পাহাড়ী আকাবাকা পথে মেঘ ছোয়ার মোহ, সিলেটের জাফলং ও বিছানাকান্দির ঝর্ণাধারার সৌন্দর্য্য ও  ​​চট্টগ্রামের কাপ্তাই হ্রদে কায়াকিং করতে করতে মনোমুগ্ধকর দৃশ্য, কক্সবাজার ও সেন্টমার্টিনের সমুদ্র সৈকতের সুবিশাল ঢেঊ, কুয়াকাটায় সূর্যোদয় ও সূর্যাস্ত এর অপরূপ দৃশ্য  এবং  উপকূলীয় দ্বীপপুঞ্জ সহ আরো সুবিশাল ভান্ডার বাংলাদেশের পর্যটনকে সুদৃঢ়ভাবে ভাবে উন্নত করে।

 

 

হাওর পর্যটনে বর্তমানে অপার সম্ভাবনা রয়েছে। বিশেষত মিঠামাইন হাওর এলাকায় প্রেসিডেন্ট রিসোর্ট নির্মান এবং রূপালী জ্যোৎস্নায় টাঙ্গুওয়ার হাওরে  নৌকায় ভেসে বেড়ানোর মত আকর্ষণ  থাকায় দেশীয় পর্যটকের আনাগোনা বেড়েছে । দেশীয় পর্যটকের পাশাপাশি বিদেশী পর্যটকের পছন্দের তালিকায় বর্তমানে এ  খন গ্রামীণ পরিবেশ। এর কারণ হিসেবে গ্রামে  কৃষকদের ধান কাটার দৃশ্য, সংষ্কৃতি, গ্রামবাংলার মেঠো পথ, সবুজ প্রকৃতি, গ্রাম্য পশু – পাখি বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য।

২০৩০ সালের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রাকে সামনে রেখে গ্রামীণ পরিবেশ সহ আরো অসংখ্য প্রাকৃ্তিক আকর্ষণ এর উন্নয়ন বিবেচনা বাংলাদের আগামী পর্যটনের উন্নয়নে ফলপ্রসু ভূমিকা রাখতে হবে। এখন পর্যন্ত, পর্যটন শিল্প জাতীয় অর্থনীতিতে একটি অবিশ্বাস্য ব্যবস্থার অবদান রেখেছে কিন্তু প্রাকৃ্তিক সৌন্দর্য্যের ভান্ডার সত্তেও বাংলাদেশে আগত বিদেশী পর্যটকদের সংখ্যা এখনো সন্তোষজনক নয়।

পর্যটন স্থানগুলোর উন্নতির অভাব, আঞ্চলিক উন্নয়নের অভাব , মানবসম্পদের দক্ষতা বৃদ্ধি না হওয়া বাংলাদেশের পর্যটনের উন্নয়নের মহিমা ফিরিয়ে আনতে যথেষ্ট সুযোগ থাকলেও সফলতার মুখ দেখছেনা । সমুদ্র বেষ্টিত পর্যটন এবং অনাবিষ্কৃত পর্যটন স্থানগুলোর অন্তর্ভুক্তি হতে পারে পর্যটনের সুদিন ফেরানোর অন্যতম পদক্ষেপ।  বিশ্ব পর্যটন দিবস ২০২১ এর স্লোগান হচ্ছে অন্তর্ভুক্তিমূলক উন্নয়নে পর্যটন এবং এই উন্নয়নের বিরাট অংশ হিসেবে জড়িয়ে রয়েছে পরিবেশ সুরক্ষা, কারিগরী দক্ষতা বৃ্দ্ধি , শিল্পের উন্নয়ন ।

 

 

এর পাশাপাশি প্রাকৃ্তিক আকর্ষণের অংশ হিসেবে কৃষি এবং গ্রামীণ পরিবেশের টেকসই উন্নয়নের গুরুত্ব দেয়া সমগ্র ধারণাকে করেছে সমৃদ্ধ। এই থেকে উপলব্ধি করা যায় যে বাংলাদেশের পর্যটনের বর্তমান পরিস্থিতি থেকে উন্নয়নে প্রাকৃ্তিক সম্পদের রক্ষণাবেক্ষণ ও পর্যটক বান্ধব করে গড়ে তোলার বিকল্প নেই। অসচেতনতা এবং অবহেলা বাংলাদেশের পর্যটনের উজ্জ্বল শিখা ধীরে ধীরে নিভিয়ে দিবে এবং এটা কখনোই কাম্য নয়।

রাশিয়ায় ফুটবল বিশ্বকাপে নজর কাড়া দৃশ্যের কথা মনে পরে গেল যে  খেলা দেখতে আসা দর্শকরা গ্যালারি নিজেরাই পরিষ্কার করছে। যদি তারা পারে, আমরা কেন না? এর জন্য উন্মুক্ত মননশীলতা এবং ব্যক্তিগত অংশের সমর্থন প্রয়োজন।

এই বার্তা সবার কাছে পৌঁছে দিতে পর্যটনের উন্নয়নে অবদান রাখা ব্যাক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে স্বীকৃতি দেয়ার পদক্ষেপ নিলে তা আরো বেগবান হবে এবং এই অবদান আমরা আমাদের জাতি ও মহাবিশ্বের সাথে গর্বের সাথে কথা বলতে পারি। ফলশ্রুতিতে , পর্যটকদের সংখ্যা স্বভাবতই দূরবর্তী আয়ের অবিশ্বাস্য মাইলফলকে পৌঁছাতে অনেকাংশে সাহায্য করবে বলে আশা করা যায়।

লেখক : মোঃ ইকবাল হোসেন, প্রভাষক, ট্যুরিজম এন্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট বিভাগ, ড্যাফোডিল ইন্সটিটিউট অব আইটি

Social

More News