[Valid RSS]
August 9, 2022, 12:50 am
Headlines
৮ আগস্ট কোভিড-১৯ সংক্রান্ত সর্বশেষ প্রতিবেদন পবিত্র আশুরা উপলক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতির বাণী ৮ আগস্ট এক নজরে বাংলাদেশ জাতীয় জ্বালানি নিরাপত্তা দিবসে প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতির বাণী PM sketches Bangmata’s key-shadow role in independence struggle President asks NHRC to play strong role in protecting human rights  realme Fan Festival is Coming with the Theme “Keep It Real” ShareTrip Recognizes Industry Partners & Declares Investment Microsoft launched Startups Founders Hub in Bangladesh PM accords Bangamata Padak to 5 women Western sanctions are good for Moscow : economist Vladimir Putin congratulated railway workers and veterans on their professional holiday China to make east Taiwan Strait drills ‘regular’ : media Any attack on a nuclear plant ‘suicidal’: UN chief Guterres Israel confirms Gaza ceasefire Russia takes out 45,000 tons of NATO ammo : Russian MoD UNDP, Grameenphone and BIDA to create economic opportunities for all Borrowing costs would rise if GDP growth is less than interest rate : Professor Iyanatul Islam ৭ আগস্ট এক নজরে বাংলাদেশ ৭ আগস্ট কোভিড-১৯ সংক্রান্ত সর্বশেষ প্রতিবেদন

২২ জুলাই এক নজরে বাংলাদেশ

Bangladesh Beyond
  • Updated on Saturday, July 23, 2022
  • 58 Impressed

২২ জুলাই এক নজরে বাংলাদেশ

 

জিয়াউর রহমান বগুড়ার মাটিকে কলুষিত করেছেন : সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী

 

বগুড়া, ৭ শ্রাবণ (২২ জুলাই) : 

 

সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ বলেছেন, প্রাগৈতিহাসিক কাল থেকে বগুড়া শিক্ষা, শিল্প, সাহিত্য-সংস্কৃতিতে উন্নত ও সমৃদ্ধ। এখানকার সাধারণ মানুষ সংস্কৃতি পরায়ন ও স্বাধীনতা প্রিয়। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানও এ জেলায় বহুবার এসেছেন। কিন্তু এ জেলার সন্তান খুনি জিয়াউর রহমান জাতির পিতাকে সপরিবারে হত্যার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়ে বগুড়ার মাটিকে কলুষিত করেছেন।

প্রতিমন্ত্রী আজ বিকালে বগুড়া জেলার ধুনট উপজেলার শহিদ মিনার (মুজিব) চত্বরে ধুনট থিয়েটার আয়োজিত ধুনট থিয়েটারের তিন যুগ পূর্তি, বাংলাদেশ গ্রাম থিয়েটারের ৪০ বছরপূর্তি ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষ্যে তিন দিনব্যাপী নাট্য ও লোক সাংস্কৃতিক উৎসব-২০২২ এর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

উৎসব উদ্বোধন করেন বগুড়া-৫ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ মোঃ হাবিবর রহমান।

প্রধান অতিথি বলেন, বগুড়ার উন্নয়নের রূপকার জাতির পিতার সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা। তাই এ এলাকার মানুষের উচিত বগুড়ার সাতটি আসন প্রধানমন্ত্রীকে উপহার দেয়া। বগুড়ার আওয়ামী লীগ দলীয় নেতাকর্মীদের প্রতি আহবান জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, আপনারা ঐক্যবদ্ধ হয়ে জনপ্রিয় ও যোগ্য জনপ্রতিনিধির পক্ষে কাজ করুন, যাতে তারা মনোনয়ন লাভ করে আগামীতে নির্বাচিত হতে পারেন।

কে এম খালিদ বলেন, সেবা, সংস্কৃতি, শান্তি ও প্রগতির অঙ্গীকার নিয়ে প্রায় তিন যুগ আগে ‘নজরুল সংগীত নিকেতন’ নামে ধুনটে একটি সাংস্কৃতিক সংগঠনের আত্মপ্রকাশ করে। যা পরবর্তীতে ‘ধুনট থিয়েটার’ নামকরণ করা হয়। তিনি বলেন, বাংলাদেশ গ্রাম থিয়েটারের আদর্শ ও লক্ষ্যের প্রতি উদ্বুদ্ধ হয়ে শিকড়ের সন্ধানে আজ অব্দি পথ চলছে ধুনট থিয়েটার ও এর প্রতিটি নাট্যকর্মী।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মজিবর রহমান মজনু ও সাধারণ সম্পাদক রাগেবুল আহসান রিপু এবং ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল জান্নাতুল ফেরদৌস রূপা। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ধুনট থিয়েটার ও ধুনট উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি টি আই এম নুরুন্নবী তারিক। শুভেচ্ছা বক্তৃতা করেন বাংলাদেশ গ্রাম থিয়েটারের সাধারণ সম্পাদক তৌফিক হাসান ময়না ও ধুনট পৌরসভার মেয়র এ জি এম বাদশা।

প্রতিমন্ত্রী পরে বগুড়া শহরের অ্যাডওয়ার্ড পার্কের শহিদ টিটু মিলনায়তনে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, বগুড়ার নবনির্বাচিত কার্যনির্বাহী পরিষদের (২০২২-২০২৪) অভিষেক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন।

 

বিএনপি বাংলাদেশের এগিয়ে যাওয়া পছন্দ করে না : নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী

 

বোচাগঞ্জ (দিনাজপুর), ৭ শ্রাবণ (২২ জুলাই) : 

 

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, আমরা দেশে শতভাগ বিদ‍্যুৎ সংযোগ দিয়েছি। আমরা লোডশেডিং ব‍্যবস্থা চালু করেছি। কারণ-যদি স্টক বাজেট থেকে গ‍্যাস-তেল কিনি তাহলে ভোগান্তি হবে বাংলাদেশের জনগণের। বাংলাদেশের মানুষকে ভোগান্তির মধ‍্যে ফেলতে চাই না। সেজন‍্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রেশনিং ব‍্যবস্থা চালু করেছেন। আজ থেকে ১৫ বছর আগে আমরা বিদ‍্যুতের মধ‍্যে ছিলাম না। তখন একদিন বিদ‍্যুৎ চলে গেলে চারদিন পর বিদ‍্যুৎ আসত। আজকে বিদ‍্যুৎ নিয়ে মির্জা ফখরুলরা যেসব কথাবার্তা বলছে-তাদের লজ্জাও লাগে না। তাদের নাম ছিল খাম্বা তারেক, খাম্বা খালেদা জিয়া-তারা ভুলে গেছে। বিদ‍্যুৎ নিয়ে বাংলাদেশে শত হাজার কোটি টাকার ব‍্যবসা করা হয়েছে। বিএনপি বাংলাদেশের এগিয়ে যাওয়া পছন্দ করে না। তারা সামনে যে ইস‍্যু পায় তা নিয়ে রাজনীতি করে। আজকে যখন বিদ‍্যুৎ নিয়ে লোডশেডিং হচ্ছে সেটা নিয়ে রাজনীতি করছে। এটার নাম দেশপ্রেম হতে পারে না। বিশ্ব সংকটের সময়ে দেশকে রক্ষা করতে সরকারের আহ্বানে ১৬ কোটি মানুষকে দায়িত্ব পালন করতে হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ব‍্যয় সাশ্রয়ের যে আহ্বান জানিয়েছেন সে দায়িত্ব পালন করতে হবে।

প্রতিমন্ত্রী আজ দিনাজপুরের বোচাগঞ্জে ছোটসুলতানপুর উচ্চ বিদ‍্যালয় এবং বড়সুলতানপুর উচ্চ বিদ‍্যালয়ের একাডেমিক ভবনের উদ্বোধন শেষে বড়সুলতানপুর উচ্চ বিদ‍্যালয় প্রাঙ্গণে আয়োজিত সুধী সমাবেশে এসব কথা বলেন।

বোচাগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ছন্দা পালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন‍্যান্যের মধ‍্যে বক্তব‍্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আবু সৈয়দ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক আফসার আলী, পৌর মেয়র
মোঃ আসলামসহ আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ।

 

দেশের মানুষের সুখ শান্তির জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন শেখ হাসিনা : পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রী

 

লামা (বান্দরবান), ৭ শ্রাবণ (২২ জুলাই) : 

 

পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের ধারাবাহিক উন্নয়ন ও মানুষের অধিকারের কথা বিবেচনা করে অসহায় মানুষকে মাথা গোঁজার ঠাঁই করে দিচ্ছেন। দেশের মানুষের সুখ শান্তির জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। তিনি বলেন, ইতোমধ্যে বান্দরবানে ২ হজার ৯৭৭ ভূমিহীন পরিবারকে ঘর করে দেওয়া হয়েছে। এতে করে আগামীতে বান্দরবান জেলায় ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার খুঁজে পাওয়া যাবে না। 

 

আজ বান্দরবান জেলার লামা উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে ভূমহীন ও গৃহহীন পরিবারের মাঝে ঘরসহ জমির দলিল হস্তান্তর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতাকালে এসব কথা বলেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রী।

 

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মোস্তফা জাবেদ কায়সারের সভাপতিত্বে এতে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অশোক কুমার পাল, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোস্তফা জামাল, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আবু বিন মোঃ ইয়াছিন আরাফাতসহ প্রশাসনের কর্মকর্তা, বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

 

এর আগে মন্ত্রী লামা পৌর এলাকার মধুঝিরিস্থ পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের অফিস কাম রেস্ট হাউস ভবন, উপজেলা সদরে আলিয়া এতিম খানায় ভবন নির্মাণ, লামা হরি মন্দির হতে মীম ফিলিং স্টেশন পর্যন্ত আরসিসি ড্রেইন নির্মাণ, চৌরঙ্গি হোটেল থেকে গজালিয়া স্টেশন পর্যন্ত আরসিসি ড্রেইন নির্মাণ, মীম ফিলিং স্টেশন হতে একতা মহিলা সমিতির অফিস পর্যন্ত আরসিসি ড্রেইন নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর ও উদ্বোধন করেন।

 

কোনো উগ্রবাদী স্বার্থান্বেষী বাংলাদেশকে ভালোবাসতে পারে না : খাদ্যমন্ত্রী

ঢাকা, ৭ শ্রাবণ (২২ জুলাই) :

খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেছেন, কোনো উগ্রবাদী স্বার্থান্বেষী বাংলাদেশকে ভালোবাসতে পারে না। সে যে ধর্মের মানুষই হোক তাদের নিয়ে দেশকে এগিয়ে নেওয়া সম্ভব নয়। এসময় তিনি এসব ব্যক্তি ও গোষ্ঠী থেকে সকলকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানান।

 

আজ রাজধানীর শ্রী শ্রী সিদ্ধেশ্বরী কালী মন্দিরের সার্বজনীন পূজা পরিষদের দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন ২০২২ এর উদ্বোধন অনুষ্ঠান শেষে খাদ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা আসাদুজ্জামান খান এবং বস্ত্র ও পাট মন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতীক এবং পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। 

 

খাদ্যমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাষ্ট্র ক্ষমতায় আছেন বলেই সংখ্যালঘুরা আক্রান্ত হলেই দ্রুত তদন্ত হয়, বিচার হয়। তিনি আরো বলেন, যারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে উস্কানিমূলক পোস্ট দেয় তাদেরকে আইনের আওতায় আনা হবে। এসময় ব্যক্তির কারণে কোনো সম্প্রদায় যেন আক্রান্ত না হয় আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে সেদিকে সজাগ দৃষ্টি রাখার আহ্বান জানান মন্ত্রী।

 

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আন্তর্জাতিক বাণিজ্য, বিনিয়োগ ও আইসিটি অনুবিভাগের সাথে T.Rowe Price Group এর কর্মকর্তাগণের বৈঠক

 

ঢাকা, ৭ শ্রাবণ (২২ জুলাই) :   

 

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আন্তর্জাতিক বাণিজ্য, বিনিয়োগ ও প্রযুক্তি অনুবিভাগ এবং         আইসিটি অনুবিভাগের সাথে যুক্তরাষ্ট্রের পুঁজিবাজারভিত্তিক বৈশ্বিক বিনিয়োগ ব্যবস্থাপনা ফার্ম T.Rowe Price Group, Inc এর  প্রতিনিধিগণের একটি বৈঠক গতকাল অনুষ্ঠিত হয়েছে। ১৯৩৭ সালে প্রতিষ্ঠিত এ কোম্পানিটি বর্তমানে ১.৫ ট্রিলিয়ন ইউএস ডলারের পোর্টফোলিও তত্ত্বাবধান করে থাকে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আন্তর্জাতিক বাণিজ্য, বিনিয়োগ ও প্রযুক্তি অনুবিভাগ এবং আইসিটি অনুবিভাগের মহাপরিচালক ড. সৈয়দ মুনতাসির মামুন ও কর্মকর্তাগণ বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন।

বৈঠকে T.Rowe Price Group, Inc এর কর্মকর্তাগণ বাংলাদেশে সরাসরি বৈদেশিক বিনিয়োগ বৃদ্ধির জন্য গৃহীত পদক্ষেপ, বাংলাদেশে বিনিয়োগ পরিবেশে আগত পরিবর্তনসমূহ, রপ্তানি নির্ভর বাংলাদেশি অর্থনীতিকে শক্তিশালীকরণের জন্য গৃহীত পদক্ষেপ, বিশেষায়িত অর্থনৈতিক অঞ্চলসমূহের কার্যক্রম ইত্যাদি বিষয়ে আলোচনা করেন।   

বৈঠকে মহাপরিচালক (আইটিআইটি ও আইসিটি) বাংলাদেশের শক্তিশালী ও দক্ষ মানবসম্পদ, শক্তিশালী অভ্যন্তরীণ বাজার, উদীয়মান স্থানীয় ব্যবসা, ডিজিটালাইজেশন, নারীর ক্ষমতায়ন, কর্মে নারীর ক্রমবর্ধমান অংশগ্রহণ, যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতি, এশিয়ার অন্যান্য দেশের সাথে সংযোগ এবং দেশে বিভিন্ন ধরনের বিনিয়োগের সুযোগের বিষয়ে কথা বলেন। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুযোগ্য নেতৃত্বে বাংলাদেশের প্রাতিষ্ঠানিক সক্ষমতা বর্তমানে অনেকাংশেই বৃদ্ধি পেয়েছে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাগণ জানান যে, বেজা, বেপজা, বিডা, পিপিপি, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনসহ সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানসমূহ বাংলাদেশে বিনিয়োগ ও ব্যবসা পরিচালনা সহজ করার জন্য কাজ করছে। মহাপরিচালক জানান, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বিদেশি বিনিয়োগকারীদের সাথে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানসমূহের সেতুবন্ধ হিসেবে কাজ করবে এবং মন্ত্রণালয়ের আন্তর্জাতিক বাণিজ্য, বিনিয়োগ ও প্রযুক্তি অনুবিভাগ বিদেশি বিনিয়োগকারীদের ২৪/৭ সকল ধরনের প্রয়োজনীয় সেবা দিতে প্রস্তুত। 

বৈঠক শেষে T.Rowe Price Group, Inc এর কর্মকর্তাগণ মতপ্রকাশ করেন যে, তারা বাংলাদেশ সফরে বিভিন্ন বৈঠকে অর্জিত অভিজ্ঞতা থেকে বাংলাদেশের ইতিবাচক দিকগুলো ভালোভাবে অবগত হয়েছেন এবং তাঁরা পুনরায় বাংলাদেশ সফরের ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

 

পর্যটন কর্পোরেশনের পদ্মা সেতু ভ্রমণ প্যাকেজ ট্যুর চালু

ঢাকা, ৭ শ্রাবণ (২২ জুলাই) :

বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশনের “পদ্মা সেতু ভ্রমণ” প্যাকেজ ট্যুর চালু হয়েছে আজ। আজ পর্যটন ভবনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মোঃ মাহবুব আলী এ প্যাকেজ ট্যুরের উদ্বোধন করেন।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ মোকাম্মেল হোসেন, বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান মোঃ আলী কদর, বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের ভারপ্রাপ্ত প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আবু তাহির মোঃ জাবের এবং পর্যটন সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন অংশীজন।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী বলেন, পদ্মা সেতু নির্মিত হওয়ার ফলে দক্ষিণবঙ্গে পর্যটনের উন্নয়নের দ্বার উন্মোচিত হয়েছে। দেশি-বিদেশি পর্যটকগণ এখন স্বল্প সময়ে কুয়াকাটা সমুদ্রসৈকত, সুন্দরবনসহ দক্ষিণাঞ্চলের পর্যটন কেন্দ্রগুলো ভ্রমণ করতে পারছেন। পদ্মা সেতুর উভয় পার্শ্বে বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশনের মাধ্যমে বিভিন্ন পর্যটন সুবিধা সৃষ্টি করা হবে।

প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, পদ্মা সেতু আমাদের ইতিহাসের অংশ। এ সেতু বিশ্বে বাঙালি জাতিকে বিশেষ অহংকার ও মর্যাদার আসনে অধিষ্ঠিত করেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃঢ় নেতৃত্বে এ সেতু নির্মিত হওয়ার ফলে দক্ষিণবঙ্গসহ সমগ্র দেশের অর্থনীতিতে গতি ও সমৃদ্ধির সৃষ্টি হবে।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশনের আয়োজনে ‘স্বপ্নের পদ্মা সেতু ভ্রমণ’ শীর্ষক প্যাকেজ ট্যুরটি প্রতি শুক্র ও শনিবার নিয়মিত পরিচালিত হবে। এই ভ্রমণের মাধ্যমে পর্যটকগণ দিনের আলোতে যেমন পদ্মা সেতুর সৌন্দর্য উপভোগ করতে পারবেন, তেমনি সন্ধ্যা ও রাতের আবহে পদ্মা সেতুর অপরূপ শোভাও ‍উপভোগ করতে পারবেন। আগ্রহী ভ্রমণকারীগণ বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশনের ০১৯৪১৬৬৬৪৪৪, ০১৩০০৪৩৯৬১৭ ও ০২-৪১০২৪২১৮ নম্বরে যোগাযোগের মাধ্যমে বুকিং নিশ্চিত করতে পারবেন।

 

সাম্প্রদায়িক অপশক্তির প্রধান পৃষ্ঠপোষক বিএনপি : তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী

 

চট্টগ্রাম, ৭ শ্রাবণ (২২ জুলাই) : 

 

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহ্‌মুদ বলেছেন, বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িক অপশক্তির প্রধান পৃষ্ঠপোষক হচ্ছে বিএনপি এবং সাম্প্রদায়িকতাকে সমূলে বিনাশ করতে হলে সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে যারা আশ্রয়-প্রশ্রয় দেয়, সাম্প্রদায়িকতা নিয়ে যারা রাজনীতি করে, তাদের চিরতরে বর্জন করতে হবে। 

 

মন্ত্রী বলেন, ‘আপনারা জানেন কারা সাম্প্রদায়িকতা নিয়ে রাজনীতি করে। যারা রাষ্ট্রটাই চায়নি, একাত্তর সালে যারা ফতোয়া দিয়েছিল হিন্দুরা গণিমতের মাল, সেই জামাতে ইসলাম বিএনপির প্রধান সহযোগী। তাদের যে ২২ দলের রাজনৈতিক জোট, সেখানে বহু দল আছে যাদের নেতারা আফগানিস্তান গিয়েছিল এবং তারা স্লোগান দেয়- আমরা সবাই তালেবান, বাংলা হবে আফগান।’ 

 

আজ চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজে ২০০৩ সালে বাঁশখালীর সাধনপুরে সংখ্যালঘু পরিবারের ১১ জনকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় বেঁচে যাওয়া তিনজনের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর ৪৫ লাখ টাকার চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন। জেলা প্রশাসনের আয়োজনে এ সময় সীতাকুণ্ডে বিএম কনটেইনার ডিপোতে অগ্নিদুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে এবং যুব সংগঠনকে যুবকল্যাণ তহবিলের অনুদানের চেকও বিতরণ করা হয়। 

 

চট্টগ্রামের ডেপুটি কমিশনার মোহাম্মদ মমিনুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাঁশখালী আসনের সংসদ সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান, চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান প্রমুখ।  

 

ড. হাছান মাহ্‌মুদ বলেন, ‘২০০১ সালের নির্বাচনে বিএনপি সরকার গঠনের পর সমগ্র দেশে ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের ওপর তাণ্ডব চালিয়েছে। সেই তাণ্ডবের প্রেক্ষিতে সারা দেশ থেকে পালিয়ে আসা ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের জন্য ঢাকায় বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে আশ্রয় কেন্দ্র খুলতে হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর নির্বাচনী এলাকা কোটালিপাড়া থেকে শুরু করে বরিশালের বানারিপাড়া, মাগুরাসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় সংখ্যালঘুদের ওপর নির্যাতন হয়েছে।’

 

‘সেই সময় নৌকায় ভোট দেয়ার অপরাধে বাড়ি দখল করে রাতারাতি সেই বাড়ির মধ্যে পুকুর খনন করা হয়েছে, হিন্দু সম্প্রদায়ের হাজার হাজার মানুষকে ঘরবাড়ি থেকে বিতাড়িত করা হয়েছে’ উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘তাদের অপরাধ ছিল তারা অসাম্প্রদায়িক দল আওয়ামী লীগকে ভোট দেয়। বাঁশখালীতেও একই অপরাধে তৎকালীন সংসদ সদস্যের নিকটাত্মীয় বিএনপি নেতা আমিন চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে অগ্নিকাণ্ড ও নৃশংস হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। সেদিন সংসদ সদস্যের দায়িত্বে যিনি ছিলেন তিনি এই দায়িত্ব এড়াতে পারেন না।’

 

যেখানেই সাম্প্রদায়িকতা আছে সেখানেই রাষ্ট্র এগুতে পারে না উল্লেখ করে মন্ত্রী হাছান বলেন, ‘সাম্প্রদায়িক রাষ্ট্র ব্যবস্থার পাকিস্তান থেকে অসাম্প্রদায়িক চেতনার ভিত্তিতে রাষ্ট্র রচনার জন্য জাতির পিতা বঙ্গুবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে বাংলাদেশের অভ্যুদয়। সুতরাং এই রাষ্ট্রে সাম্প্রদায়িকতা থাকবে না। সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে সমূলে বিনাশ করতে হবে, তাহলে রাষ্ট্র এগিয়ে যাবে। সাম্প্রদায়িকতার কারণে পাকিস্তান রাষ্ট্র আজকে এগুতে পারছে না।’ 

 

এরপর তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী বাংলাদেশ টেলিভিশন চট্টগ্রাম কেন্দ্রের মাল্টিপারপাস ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। এসময় চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সিটি মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী, ডেপুটি কমিশনার মোহাম্মদ মমিনুর রহমান, বিটিভি চট্টগ্রাম কেন্দ্রের জিএম মাহফুজা আক্তার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া দুপুরে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী চট্টগ্রাম মহানগরীর ঝুঁকিপূর্ণ পাহাড় সংরক্ষণে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে অবৈধ দখলদারমুক্ত পাহাড়ি ভূমিতে বৃক্ষরোপণ করেন।

 

খাদ্যশস্যের উৎপাদন বাড়াতে কৃষকদের সহায়তা প্রদান করছে সরকার : পরিবশমন্ত্রী

জুড়ী (মৌলভীবাজার), ৭ শ্রাবণ (২২ জুলাই) :

পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিন বলেছেন, দেশে খাদ্যশস্যের উৎপাদন বৃদ্ধিতে ব্যাপকভাবে চাষাবাদ করতে কৃষকদের প্রয়োজনীয় সহায়তা প্রদান করছে সরকার। তিনি বলেন, ইউরোপে চলমান যুদ্ধের কারণে বিশ্বে খাদ্যসংকট দেখা দিতে পারে, ভোজ্য তেল ও খাদ্যশস্য আমদানি কষ্টসাধ্য হয়ে উঠতে পারে। এজন্য বর্ষার পানি নেমে যাওয়ার সাথে সাথে ভোজ্য তেলের জন্য সরিষার চাষ করতে হবে। একই জমিতে এরপর নির্দিষ্ট ধান চাষ করতে হবে। এজন্য সরকার প্রয়োজনীয় সহায়তা প্রদান করবে। এছাড়া কৃষি ও মৎস্য কর্মকর্তাগণ সরেজমিনে মাঠ পরিদর্শনপূর্বক খাদ্যশস্য ও মৎস্যের উৎপাদন বৃদ্ধিতে কৃষকদের সহায়তা করবেন।

পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী আজ মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে উপজেলার ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী সম্প্রদায়ভুক্ত পরিবারের জীবনমান উন্নয়নে আর্থিক অনুদান, ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী সম্প্রদায়ের শিক্ষার্থীদের বিশেষ শিক্ষা অনুদানের চেক, অসচ্ছল সংস্কৃতিসেবীর অনুকূলে কল্যাণ ভাতার চেক, দুঃস্থ মহিলাদের মাঝে সেলাই মেশিন এবং কৃষকদের মাঝে সার ও বীজ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, বৈশ্বিক সংকটের কারণে বিশ্ববাজারে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে। সরকার অন্যান্য দেশের তুলনায় দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে রেখেছে। সরকারের পদক্ষেপের ফলে ইতোমধ্যে সয়াবিন তেলের দাম কমে এসেছে। এছাড়া বিশ্ববাজারে তেল ও গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির ফলে বর্তমানে বিদ্যুৎ উৎপাদনে সরকারকে বিপুল পরিমাণ ভর্তুকি দিতে হচ্ছে। তিনি সাময়িক এ সময়ের জন্য সবাইকে বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী হওয়ার আহ্বান জানান। মন্ত্রী বলেন, সকল সমস্যা সমাধান করে প্রধানমন্ত্রীর পরিকল্পনা মতো ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ উন্নত দেশে পরিণত হবে।

অনুষ্ঠানে মন্ত্রী অসচ্ছল ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর ৩০টি পরিবারকে আর্থিক অনুদান ও ৫০ জন শিক্ষার্থীর মাঝে শিক্ষা উপবৃত্তি বিতরণ করেন। কৃষি বিভাগের উদ্যোগে ২ হাজার কৃষকের মাঝে ৫ কেজি ধানের বীজ ও ২০ কেজি সার এবং মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মাধ্যমে ২ জনকে সেলাই মেশিন প্রদান করেন।

জুড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোনিয়া সুলতানার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জুড়ী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা এম, এ, মোঈদ ফারুক, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রঞ্জিতা শর্মা এবং ভাইস চেয়ারম্যান রিংকু রঞ্জন দাশ প্রমুখ।

এর পূর্বে মন্ত্রী জায়ফরনগর উচ্চ বিদ্যালয়ে আয়োজিত অনুষ্ঠানে জুড়ী উপজেলায় বন্যাপরবর্তী জনসাধারণের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতকরণে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্পের উদ্বোধন করেন।

 

২২ জুলাই কোভিড-১৯ সংক্রান্ত সর্বশেষ প্রতিবেদন

 

ঢাকা, ৭ শ্রাবণ (২২ জুলাই) :  

 

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এবং রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর)-এর তথ্যানুযায়ী গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে শুক্রবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৬২০ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণ পাওয়া গেছে। নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে রোগী শনাক্তের হার ৮ দশমিক ৩৬ শতাংশ। এ সময় ৭ হাজার ৪১৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।           

      

গত ২৪ ঘণ্টায় কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়ে ২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ পর্যন্ত ২৯ হাজার ২৫৮ জন করোনায় মৃত্যুবরণ করেছেন। করোনাভাইরাস আক্রান্তদের মধ্যে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৯ লাখ ৩৩ হাজার ২৫৯ জন। 

 

পাহাড়পুর বৌদ্ধ বিহারকে আরো দর্শক ও পর্যটনবান্ধব করে গড়ে তোলা হবে : সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী

 

নওগাঁ, ৭ শ্রাবণ (২২ জুলাই) :

সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ বলেছেন, সোমপুর মহাবিহার বা পাহাড়পুর বৌদ্ধ বিহার অষ্টম শতকে নির্মিত বৌদ্ধ বিহারের ধ্বংসাবশেষ। এটি দক্ষিণ এশিয়ার দ্বিতীয় বৃহত্তম বৌদ্ধ বিহারের নিদর্শন এবং হেরিটেজ সাইট। এ বিহারকে আরো দর্শক ও পর্যটকবান্ধব করে গড়ে তোলার লক্ষ্যে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। যার অংশ হিসেবে আয়োজন করা হয়েছে অংশীজনের সভা, উন্নতমানের ফুডকোর্ট চালুসহ বিভিন্ন উদ্যোগ। তবে প্রত্নতত্ত্ব আইন মেনেই এ বিহারকে আরো নান্দনিক করে গড়ে তোলা হচ্ছে।

প্রতিমন্ত্রী আজ নওগাঁ জেলার বদলগাছি উপজেলার পাহাড়পুর জাদুঘর সেমিনার কক্ষে পাহাড়পুর বৌদ্ধ বিহারকে দর্শকবান্ধব করার লক্ষ্যে প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের রাজশাহী ও রংপুর আঞ্চলিক কার্যালয় আয়োজিত অংশীজনের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

পাহাড়পুর বৌদ্ধ বিহারের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় মুগ্ধ হয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, দেশের অন্য প্রত্নতাত্ত্বিক সাইটগুলোর ব্যবস্থাপনা করা গেলে দর্শক ও পর্যটকদের সংখ্যা আরো বেড়ে যাবে এবং সরকার সে লক্ষ্যেই কাজ করে যাচ্ছে। তিনি বলেন, অংশীজনের সভায় পাহাড়পুর বৌদ্ধ বিহারকে দর্শকবান্ধব করার লক্ষ্যে বিভিন্ন প্রস্তাব ও পরামর্শ এসেছে। অন্যতম হলো- জলাবদ্ধতা দূরীকরণ ও সুপেয় পানির সরবরাহের ব্যবস্থা গ্রহণ, দেশি-বিদেশি পর্যটকদের আবাসনের জন্য উন্নতমানের রিসোর্ট/মোটেল নির্মাণ, কারুপণ্য প্রদর্শনী ও বিক্রয়কেন্দ্র স্থাপন, মুক্তমঞ্চ/সাংস্কৃতিক কেন্দ্র স্থাপন, মাস্টাররোলের কর্মচারীদের স্থায়ীকরণ, জামালগঞ্জ রেলস্টেশনকে আন্তঃনগর ট্রেনের স্টপেজে রূপান্তর, পাহাড়পুরের বিভিন্ন রাস্তার দু’পাশে গাছ লাগিয়ে আরো দৃষ্টিনন্দন ও ছায়া সুনিবিড় করা, রাতের পাহাড়পুরের সৌন্দর্য দেখার ব্যবস্থা গ্রহণ, ট্যুরিস্ট পুলিশের জনবল বৃদ্ধি ও লজিস্টিক সাপোর্ট, পাহাড়পুরসহ এ অঞ্চলের অন্যান্য পর্যটন স্পটসমূহকে ঘিরে পুনরায় ট্যুরিস্ট বাস চালুকরণ, পাহাড়পুরের আশপাশের সড়ক নেটওয়ার্ক বৃদ্ধি ও প্রশস্তকরণ ইত্যাদি। কে এম খালিদ বলেন, পাহাড়পুরের উন্নয়নে যৌক্তিক পরামর্শ ও দাবিসমূহ পর্যায়ক্রমে বাস্তবায়ন করা হবে। তবে সুপেয় পানি সরবরাহ ও মুক্তমঞ্চ স্থাপনে অতি দ্রুত পদক্ষেপ নেয়া হবে।

প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের মহাপরিচালক রতন চন্দ্র পণ্ডিত এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন স্থানীয় সংসদ সদস্য মোঃ শহিদুজ্জামান সরকার ও মোঃ ছলিম উদ্দিন তরফদার।

 

বঙ্গবন্ধু জনপ্রশাসন পদক উপলক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর বাণী

 

ঢাকা, ৭ শ্রাবণ (২২ জুলাই) :   

 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামীকাল ২৩ জুলাই ‘বঙ্গবন্ধু জনপ্রশাসন পদক-২০২২’ প্রদান উপলক্ষ্যে নিম্নোক্ত বাণী প্রদান করেছেন : 

“প্রতি বছরের মতো এবারও সরকারি কর্মচারীদের সৃজনশীল ও প্রশংসনীয় কাজের জন্য ‘বঙ্গবন্ধু জনপ্রশাসন পদক’ প্রদানের উদ্যোগকে আমি স্বাগত জানাই। পদকপ্রাপ্ত সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন জানাই। আমি মনে করি, পদকপ্রাপ্তির এই আনন্দ তাঁদের উদ্যম, মেধা ও সৃজনশীলতাকে আরো শাণিত করবে এবং অন্যদের উৎসাহিত করবে।

সরকারি কর্মচারীরা সাধারণত কর্তৃপক্ষের নির্দেশে দায়িত্ব পালন করে থাকেন। কিন্তু এর মধ্যে কোনো কোনো কর্মচারী প্রচলিত ধ্যান-ধারণার বাইরে গিয়ে নতুন পদ্ধতি, প্রযুক্তি ও পন্থা ব্যবহার করে চলমান কাজ ও সেবা প্রদান প্রক্রিয়ায় ইতিবাচক পরিবর্তন আনতে সক্ষম হন। এরূপ উদ্ভাবন-মানসিকতা সম্পন্ন ও উদ্যোগী কর্মচারীদের জন্যই এ পদকের আয়োজন। বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের অধিকসংখ্যক কর্মচারীকে পদকের আওতায় নিয়ে আসার জন্য সম্প্রতি জনপ্রশাসন পদকের ক্ষেত্র ও কলেবর সম্প্রসারণ করা হয়েছে।

সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীনতা অর্জনের পর মাত্র নয় মাসেই একটি সংবিধান প্রণয়ন করেছিলেন। সংবিধানের রাষ্ট্র পরিচালনার মূলনীতি অংশে ২১(২) অনুচ্ছেদে উল্লেখ করেছেন-‘সকল সময়ে জনগণের সেবা করিবার চেষ্টা করা প্রজাতন্ত্রের কর্মে নিযুক্ত প্রত্যেক ব্যক্তির কর্তব্য।’ তিনি সব সময় সরকারি কর্মচারীদের প্রতি সহানুভূতিশীল ছিলেন। তিনি নিয়মিত সরকারি কর্মচারীদের খোঁজ-খবর রাখতেন এবং তাঁদের ব্যক্তিগত ও পারিবারিক কল্যাণ নিশ্চিত করার বিষয়ে আন্তরিক ছিলেন। তিনি চাইতেন, প্রতিটি সরকারি কর্মচারী দক্ষ ও সৎ হবেন এবং দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে সঠিক পথে পরিচালিত হবেন। জনপ্রশাসন পদকের সঙ্গে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের নাম সংযুক্ত করায় আমি জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়কে ধন্যবাদ জানাই। আমার প্রত্যাশা, এর মাধ্যমে জাতির পিতার আদর্শ, দেশপ্রেম, মানবিকতা ও দায়িত্বশীলতা সরকারি কর্মচারীদের মধ্যে সঞ্চারিত হবে।

আওয়ামী লীগ সরকার সরকারি কর্মচারীদের কল্যাণের বিষয়ে সর্বদাই আন্তরিক। সরকারি কর্মচারীদের বেতন-ভাতা বৃদ্ধিসহ বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধির বিষয়টি আমরা অত্যন্ত গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করি। বিনিময়ে সরকারি কর্মচারীদের নিকট হতে আমরা আন্তরিক সেবা ও দায়িত্বশীলতা প্রত্যাশা করি। করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণের পাশাপাশি খাদ্য সহায়তা বিতরণ, সরবরাহ ব্যবস্থা নিশ্চিতকরণ এবং সরকারি সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে সরকারি কর্মচারীদের মানবিক দায়িত্ব পালনের বিষয়টি ছিল প্রশংসনীয়। বৈশ্বিক মহামারি আর রাজনৈতিক সংঘাতের কারণে বিশ্বের অনেক দেশেই যখন অর্থনীতি স্থবির হয়ে পড়েছে, তখন আমাদের অর্থনীতি গতিশীল রয়েছে। ২০২০-২১ অর্থবছরে আমাদের ৬.৯৪ শতাংশ জিডিপি প্রবৃদ্ধি অর্জিত হয়েছে এবং মাথাপিছু আয় বৃদ্ধি পেয়ে বর্তমানে ২ হাজার ৮২৪ মার্কিন ডলারে উন্নীত হয়েছে। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে জাতিসংঘ বাংলাদেশকে স্বল্পোন্নত দেশ হতে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীতকরণের জন্য সুপারিশ করেছে।

আমি সরকারি কর্মচারীদের চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি গ্রহণের জন্য আহ্বান জানাই। আমাদের সরকার সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোর সক্ষমতা বৃদ্ধি করে শক্তিশালী, কার্যকর ও গতিশীল জনপ্রশাসন গড়ে তুলতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। আমি বিশ্বাস করি, আগামী দিনের জনপ্রশাসন উদ্ভাবন মনস্ক, মানবিক এবং নাগরিকবান্ধব হবে।

আমি ‘বঙ্গবন্ধু জনপ্রশাসন পদক-২০২২’ প্রদান উপলক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠানের সার্বিক সাফল্য কামনা করছি।

 

       জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু, বাংলাদেশ চিরজীবী হোক।”                                                                               

 

জাতীয় পাবলিক সার্ভিস দিবস ও বঙ্গবন্ধু জনপ্রশাসন পদক উপলক্ষ্যে রাষ্ট্রপতির বাণী      

 

ঢাকা, ৭ শ্রাবণ (২২ জুলাই) :  

 

          রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ আগামীকাল ২৩ জুলাই ‘জাতীয় পাবলিক সার্ভিস দিবস ও বঙ্গবন্ধু জনপ্রশাসন পদক ২০২২’ উপলক্ষ্যে নিম্নোক্ত বাণী প্রদান করেছেন :

          “জাতীয় পাবলিক সার্ভিস দিবস ২০২২’ উপলক্ষ্যে প্রজাতন্ত্রের সকল কর্মচারীকে জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। 

জনপ্রশাসনে কর্মরত কর্মচারীদের সৃজনশীল ও গঠনমূলক কার্যক্রম উৎসাহিত করার মাধ্যমে কর্মস্পৃহা বৃদ্ধি, দক্ষতা উন্নয়নে উৎসাহিতকরণ ও সরকারের উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন অধিকতর গতিশীল করার লক্ষ্যে ‘বঙ্গবন্ধু জনপ্রশাসন পদক ২০২২’ প্রদান করা হচ্ছে। আমি ‘বঙ্গবন্ধু জনপ্রশাসন পদক ২০২২’ প্রাপ্ত সকল কর্মচারীকে আন্তরিক অভিনন্দন জানাচ্ছি। 

জনকল্যাণে সরকার গৃহীত নীতি-কৌশল প্রণয়নে এবং সেগুলো বাস্তবায়নে দক্ষ, গতিশীল ও জবাবদিহিমূলক জনপ্রশাসনের ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধানের ২১(২) অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে, ‘সকল সময়ে জনগণের সেবা করিবার চেষ্টা করা প্রজাতন্ত্রের কর্মে নিযুক্ত প্রত্যেক ব্যক্তির কর্তব্য।’ এজন্য সরকারি কর্মচারীদের জনগণের সেবক হিসেবে কাজ করতে হবে। জনগণ যাতে স্বচ্ছতা ও দ্রুততার সঙ্গে কাঙ্ক্ষিত সরকারি সেবাসহ সকল ন্যায্য অধিকার পায় তা নিশ্চিত করতে হবে।  

সরকার গৃহীত রূপকল্প-২০২১ এর সফল বাস্তবায়নের মাধ্যমে বাংলাদেশ ইতোমধ্যে স্বল্পোন্নত দেশের তালিকা হতে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণের চূড়ান্ত ধাপে পৌঁছেছে, ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্ন বাস্তবরূপ লাভ করেছে, নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতুর ন্যায় মেগা প্রকল্প সফলভাবে বাস্তবায়িত হয়েছে। সর্বোপরি সরকারের সময়োপযোগী ও দূরদর্শী সিদ্ধান্তের কারণে করোনা অতিমারির সময়েও বিশ্বের অন্যান্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশের অর্থনীতি দ্রুত স্বাভাবিক ধারায় ঘুরে দাঁড়াতে সক্ষম হয়েছে। এ সকল অর্জনে জনপ্রশাসনের কর্মচারীগণ প্রত্যক্ষ ভূমিকা পালন করেছেন। 

অষ্টম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনার সফল বাস্তবায়ন, ২০৩০ সালের মধ্যে এসডিজি এর লক্ষ্যমাত্রা অর্জন, ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত বাংলাদেশ বিনির্মাণ এবং ২১০০ সালের মধ্যে বদ্বীপ পরিকল্পনা বাস্তবায়নে সরকার দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। একইসঙ্গে রাশিয়া-ইউক্রেন সংকটের ফলে সম্ভাব্য অর্থনৈতিক ঝুঁকি বিবেচনা করে আগামী দিনের নীতি-কৌশল নির্ধারণ করা হচ্ছে। জনপ্রশাসনের কর্মচারীগণের সততা, দক্ষতা, নিষ্ঠা ও সেবা প্রদানের মানসিকতার উপর এ সকল পরিকল্পনার সফল বাস্তবায়ন বহুলাংশে নির্ভরশীল। পাশাপাশি চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের ফলে সৃষ্ট চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে এর সম্ভাবনাসমূহ জনগণের কল্যাণে কাজে লাগাতে নিজেদের সক্ষমতা উন্নয়নে মনোনিবেশ করতে হবে। প্রজাতন্ত্রের কর্মচারীগণ স্বাধীনতার চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে আগামীদিনে সরকারের সকল উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের মাধ্যমে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের ‘সোনার বাংলা’ গঠনে কার্যকর ভূমিকা পালন করবে – এটাই সকলের প্রত্যাশা। 

আমি ‘জাতীয় পাবলিক সার্ভিস দিবস ২০২২’ উপলক্ষ্যে গৃহীত সকল কর্মসূচির সফলতা কামনা করছি। 

জয় বাংলা।

          খোদা হাফেজ, বাংলাদেশ চিরজীবী হোক।”

 

Read us@googlenews

 

Social

More News
© Copyright: 2020-2022

Bangladesh Beyond is an online version of Fortnightly Apon Bichitra 

(Reg no: DA 1825)

Developed By Bangladesh Beyond