[Valid RSS]
September 24, 2022, 8:37 pm
Treanding
GIZ Bangladesh’s training held on SDG localisation in Khulna ছোটদের সহজ প্রোগ্রামিং শিক্ষায় প্রকাশিত হল বাংলা স্ক্র্যাচ বই Ditching Russian gas no way to reach climate goals : Putin চট্টগ্রামে নিরাপদ খাদ্য বিষয়ে প্রচারনা কর্মসূচি সমাপ্ত Samsung brings month-long smartphone campaign On September 6–7, Vladimir Putin will make working trip to Vladivostok Two Russian embassy workers killed in ‘suicide bombing’ Shocked & devastated by the horrific attacks : Justin Trudeau  SSC, equivalent exams begin Sept 15: Dipu Moni Ten killed in Canadian stabbing spree Russia wants UN to pressure US : media Daraz Bangladesh Anniversary Campaign – Now LIVE! realme offers upto BDT 3400 off on occasion of Daraz’s 8th anniversary General Pharmaceuticals employees will receive insurance from MetLife চট্টগ্রামের কলেজিয়েট স্কুলে নিরাপদ খাদ্য বিষয়ে প্রচারনা কর্মসূচি শুরু Bangladesh a secular country, immediate action is taken whenever minorities are attacked: PM  Two more mortar shells from Myanmar land in Bangladesh OPPO launches killer device A57 in 15-20K price range ShareTrip and Grameenphone join hands to offer exciting travel privileges ড্যাপ ২০২২-২০৩৫ এর পরিপূর্ণ বাস্তবায়নের দাবী বিআইপির

২৬ আগস্ট এক নজরে বাংলাদেশ

Bangladesh Beyond
  • Updated on Friday, August 26, 2022
  • 75 Impressed

২৬ আগস্ট এক নজরে বাংলাদেশ

 

বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলার জন্য লাগসই ডিজিটাল সংযোগ অপরিহার্য : টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী

ঢাকা, ১১ ভাদ্র (২৬ আগস্ট) :

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ে তোলার জন্য লাগসই ডিজিটাল সংযোগ ও ডিজিটাল ডিভাইস অপরিহার্য। ইন্টারনেট ও স্মার্ট ফোন শ্বাস – প্রশ্বাসের মতো। ডিজিটাল বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার ধারাবাহিকতায় ইন্টারনেট এখন মানুষের জীবনধারায় অনিবার্য একটি বিষয় হিসেবে জড়িয়ে আছে। ডিজিটাল প্রযুক্তির চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় ইন্টারনেট সাশ্রয়ী ও সহজলভ্য করার পাশাপাশি সবচেয়ে কম মূল্যে স্মার্ট ফোন সাধারণের নাগালে পৌঁছে দেয়ার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। ইতোমধ্যেই ইন্টারনেটের একদেশ একরেট চালু করেছি। দেশে উৎপাদিত মোবাইল ফোন ইতোমধ্যেই শতকরা ৯৬ ভাগ চাহিদা মেটানোর সক্ষমতা অর্জন করেছে বলে মন্ত্রী উল্লেখ করেন।

মন্ত্রী আজ ঢাকায় বাংলাদেশ ইন্টারনেট গভর্নেন্স ফোরাম (বিআইজিএফ) আয়োজিত ‘রিসাইলেন্ট ইন্টারনেট ফর এ শেয়ার্ড সাসটেইনেবল এন্ড কমন ফিউচার : এক্সেস এন্ড কানেকটিভিটি, কমিউনিটি নেটওয়ার্কস, ক্যাপাসিটি ডেভেলপমেন্ট এন্ড ডিজিটাল ইনক্লিউসন শীর্ষক অধিবেশনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন। তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয় বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটি এবং বিআইজিএফ চেয়ারম্যান হাসানুল হক ইনু অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী বলেন,  পৃথিবীর সবচেয়ে বড় লাইব্রেরি হচ্ছে ইন্টারনেট। কাউকে এ থেকে বঞ্চিত করা ঠিক নয়। তিনি বলেন, ইন্টারনেট ব্যবহারের খারাপ দিকও আছে আবার খারাপ দিক থেকে রক্ষার উপায়ও আছে। সেটা থেকে ছেলে মেয়েদের সুরক্ষায় অভিভাবকদেরকেই ভূমিকা নিতে হবে। প্যারেন্টাইল গাইডেন্স ব্যবহার করে ইন্টারনেট শতভাগ নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব। ডিজিটাল প্রযুক্তি বিকাশের এই অগ্রদূত  ইন্টারনেট নিরাপদ রাখতে সরকার গৃহীত বিভিন্ন উদ্যোগ তুলে ধরে বলেন, ইতোমধ্যে ২৬ হাজার পর্নসাইট ও ৬ হাজার জুয়ার সাইট আমরা বন্ধ করেছি। এটি চলমান প্রক্রিয়া। ছেলে মেয়েদের ডিজিটাল দক্ষতা সম্পন্ন মানব সম্পদ হিসেবে গড়ে তোলার প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরে  তিনি বলেন, ইতোমধ্যেই প্রাথমিক স্তরে বই ছাড়া ডিজিটাল কনটেন্টের মাধ্যমে আমি লেখা পড়ার ব্যবস্থা করেছি। দেশের ৮০০ প্রাথমিক বিদ্যালয়ে তা চালু করা হচ্ছে। আমি রাস্তাটা দেখালাম অন্যরা তা অনুসরণ করবে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, সন্তানদের ডিজিটাল দক্ষতা অর্জনের সুযোগ না দিলে আগামী পৃথিবীতে তারা টিকে থাকার জন্য অযোগ্য হয়ে পড়বে। ডিজিটাল প্রযুক্তিতে বাংলা ভাষার উদ্ভাবক মোস্তাফা জব্বার বলেন, ইন্টারনেট ব্যবহার বাড়ার পাশাপাশি মানুষ ইন্টারনেটের উচ্চগতিও এখন প্রত্যাশা করে। এই লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ যুগান্তকারী বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করছে। তিনি বলেন, ২০০৬  সালে দেশে প্রতি এমবিপিএস ইন্টানেটের দাম ছিলো ৭৮ হাজার টাকা, ২০০৮ সালে তা ২৭ হাজার টাকা এবং বর্তমানে তা ৬০ টাকায় নির্ধারিত হয়েছে। সে সময় দেশে মাত্র সাড়ে সাত জিবিপিএস ব্যান্ডউইথ ব্যবহৃত হতো তা বেড়ে বর্তমানে ৩৮ শত জিবিপিএস-এ উন্নীত হয়েছে বলে মন্ত্রী উল্লেখ করেন। ২০২১ সালের ১২ ডিসেম্বর বাংলাদেশ ফাইভ-জি যুগে প্রবেশ করেছে উল্লেখ করে বলেন, সামনের যুগের প্রযুক্তি হবে ফাইভ-জি। ২ জি কিছু দিন চলবে, থ্রি জি মোবাইল আমদানি ও উৎপাদন জানুয়ারি থেকে বন্ধ হয়ে যাবে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ফোর-জি হবে কমন প্লাটফর্ম। মোবাইল কলড্রপের টাকা গ্রাহকরা ফেরত পাবেন বলেও মন্ত্রী এসময় উল্লেখ করেন।

            বিএনএনআরসি’র সিইও এএইচএম বজলুর রহমানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিটিআরসি’র ভাইস চেয়ারম্যান সুব্রত রায় মৈত্র, অ্যামটবের সাবেক মহাসচিব টিআইএম নুরুল কবির, আইজিএফ’র সেক্রেটারি জেনারেল মোহাম্মদ আবদুল হক অনু, ইয়ুথ ইন্টারনেট গভর্নেন্স ফোরামের চেয়ারপার্সন সৈয়দা কামরুন জাহান রিপা এবং কিডস ইন্টানেট গভর্নেন্স ফোরামের চেয়ারপার্সন আয়শা লাবিবা প্রমূখ বক্তৃতা করেন।

 

মুক্তিযুদ্ধের চেতনানির্ভর বিজ্ঞানবান্ধব শিক্ষা ব্যবস্থা প্রচলনে কাজ করছে সরকার : শিক্ষামন্ত্রী

পাবনা, ১১ ভাদ্র (২৬ আগস্ট) :

          শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, সরকার মুক্তিযুদ্ধের চেতনানির্ভর, বিজ্ঞানবান্ধব, দক্ষতানির্ভর, মানবিক ও সৃজনশীল শিক্ষা ব্যবস্থা প্রচলনে কাজ করছে।

          মন্ত্রী আজ পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের আয়োজনে ‘বঙ্গবন্ধু : বাংলাদেশ জাতি রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার মহানায়ক’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।

          পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. হাফিজা খাতুনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় মুখ্য আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মোঃ মশিউর রহমান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংসদ সদস্য মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ মোঃ নুরুজ্জামান বিশ্বাস, সংসদ সদস্য আহমেদ ফিরোজ কবির, বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশনের সদস্য অধ্যাপক ড. নূরজাহান বেগম, স্কয়ার টয়লেট্রিজ লিমিটেড ও স্কয়ার ফুড অ্যান্ড বেভারেজ লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক বীর মুক্তিযোদ্ধা অঞ্জন চৌধুরী প্রমুখ।

          শিক্ষামন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু ভবিষ্যৎ দেখতে পেতেন। তিনি মানুষের হৃদয়ে বাস করতেন। তাঁর ইতিহাসবোধ ছিল প্রচণ্ড। তাই তিনি অনেকের আপত্তি সত্ত্বেও ৭০ এর নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছিলেন। ৭০ সালের নির্বাচনে নিরঙ্কুশ বিজয় স্বাধীনতার বৈধতা তৈরি করেছিল। নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করলে মুক্তিযুদ্ধে হয়তো আন্তর্জাতিক সমর্থন পাওয়া যেত না। তেমনি ৭ মার্চের ভাষণে তিনি স্বাধীনতার ঘোষণা দেননি। কারণ ঘোষণা দিলে স্বাধীনতা যুদ্ধকে বিচ্ছিন্নতাবাদী আন্দোলন বলার চেষ্টা করতো পাকিস্তান সরকার। এ সময় অসাম্প্রদায়িক, শোষণমুক্ত, বৈষম্যহীন, গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ গঠনে সকলকে কাজ করার আহ্বান জানান শিক্ষামন্ত্রী।

 

বাংলাদেশে ইউরিয়া সারের পর্যাপ্ত মজুত রয়েছে : শিল্পমন্ত্রী

গোপালগঞ্জ, ১১ ভাদ্র (২৬ আগস্ট) :

শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন বলেছেন, শিল্প মন্ত্রণালয় বাংলাদেশের জন্য প্রয়োজনীয় ইউরিয়া সার বাংলাদেশ কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ কর্পোরেশন (বিসিআইসি) এর সার কারখানাগুলোর মাধ্যমে উৎপাদন এবং বিদেশ থেকে আমদানি করে থাকে। বর্তমানে বাংলাদেশে ইউরিয়া সারের পর্যাপ্ত মজুত রয়েছে।

আজ গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিসৌধে শ্রদ্ধা জানানোর পর সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

          মন্ত্রী বলেন, সিমেন্ট ও রডের দাম বেড়েছে। জনগণের যে কষ্ট হচ্ছে সেটা সরকারপ্রধান হিসেবে প্রধানমন্ত্রী চিন্তা করেন। আমরা ব‌্যবসায়ীদের নীতিমালার মধ্যে আনতে পারিনি। আমরা চেষ্টা করছি সার্বিকভাবে বাজার নিয়ন্ত্রণের জন‌্য। মানুষের যে ভোগান্তি হচ্ছে তা কমানোর জন‌্য চেষ্টা করছি। আগামী কয়েক মাসের মধ্যে মানুষের কষ্ট অনেকখানি লাঘব হবে।

          মন্ত্রী আরো বলেন, করোনার পরে বিশ্বের যে সার্বিক অবস্থা তা হঠাৎ করে হয়নি। করোনার পর আবার ইউক্রেন ও রাশিয়ার যুদ্ধ এতে প্রভাব ফেলেছে। আমরা একটা গ্লোবাল ফ‌্যামিলিতে বসবাস করি। আমরা একে অপরের ওপর নির্ভরশীল।

          এ সময় উপস্থিত সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার বলেন, বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ এক ও অভিন্ন। যতদিন বাংলাদেশ থাকবে, বাঙালি থাকবে, এদেশের জনগণ থাকবে, ততদিনই বঙ্গবন্ধু সকলের অনুপ্রেরণার উৎস হয়ে থাকবেন। আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম যাতে বঙ্গবন্ধুর নীতি, আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে বেড়ে উঠতে পারে, সে লক্ষ্যে সকলকে উদ্যোগী হতে হবে।

          এর আগে মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীর নেতৃত্বে শিল্প মন্ত্রণালয়ের একটি প্রতিনিধিদল জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করে। পরে তারা বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের শহিদ সদস‌্যদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে ফাতেহা পাঠ ও বিশেষ মোনাজাতে অংশ নেন।

          এসময় শিল্পসচিব জাকিয়া সুলতানা, বিসিআইসি’র চেয়ারম্যান শাহ্ মোঃ ইমদাদুল হক, শিল্প মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব নূরুল আলম, জনেন্দ্রনাথ সরকার, যুগ্মসচিব মোঃ আব্দুল ওয়াহেদ, জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানাসহ শিল্প মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

          পরে শিল্পমন্ত্রী গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার ঘোনাপাড়ায় বিসিআইসি কর্তৃক সারের বাফার গোডাউন নির্মাণের ফলক উন্মোচন উপলক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় বলেন, আমদানিকৃত ইউরিয়া সার দেশের বিভিন্ন জেলায় অবস্থিত বিএডিসি এর ২৫টি বাফার গুদামের মাধ্যমে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের কৃষকদের মাঝে সরবরাহ করা হয়ে থাকে। এছাড়া, নিরাপদ মুজত নিশ্চিতের লক্ষ্যে ২৫ লাখ মেট্রিক টন ইউরিয়া সারের অতিরিক্ত হিসেবে আরো ৫ লাখ মেট্রিক টন সার বাফার গোডাউনসমূহে মজুত রাখা প্রয়োজন। বর্তমানে কারখানা ও সকল বাফার গোডাউনের ধারণ ক্ষমতা সর্বোচ্চ ৩ লাখ মেট্রিক টন। তাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় দেশের বিভিন্ন জেলায় ৪৭টি বাফার গোডাউন নির্মাণ করা হচ্ছে। সবগুলো বাফার গোডাউন নির্মাণ সম্পন্ন হলে মোট প্রায় ৫ লাখ মেট্রিক টন সার মজুত রাখা সম্ভব হবে।

 

বঙ্গবন্ধু হত‍্যার নেপথ‍্য নায়কদের খুঁজে বের করার লক্ষ‍্যে কমিশন গঠনে দেশবাসী উন্মুখ : নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী


গোপালগঞ্জ (টুঙ্গিপাড়া), ১১ ভাদ্র (২৬ আগস্ট) :

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পলাতক খুনিদের দেশে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করা হচ্ছে। বঙ্গবন্ধু ও জেলখানা হত‍্যার নেপথ‍্য নায়কদের খুঁজে বের করার লক্ষ‍্যে কমিশন গঠনে দেশবাসী উন্মুখ। নেপথ‍্য নায়কদের মুখোশ উন্মোচন হওয়া দরকার। বঙ্গবন্ধুর হত‍্যার বিচার হবেনা- সেটি আইন করে বন্ধ করেছিলেন জিয়াউর রহমান। খুনিদের রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতা ও আশ্রয়-প্রশ্রয় দিয়েছেন জিয়া, এরশাদ ও খালেদা জিয়া।

প্রতিমন্ত্রী আজ টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদতবার্ষিকী উপলক্ষ‍্যে  বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ  শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ১৯৯৬ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে ইনডেমনিটি অ্যাক্ট বাতিল করে বঙ্গবন্ধুর খুনিদের বিচার কার্যক্রম শুরু করেন। ২০০১ থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত বিএনপি জামাত জোট সে বিচারের কোন কার্যক্রম গ্রহণ করেনি বরং তারা আমাদের ওপর গ্রেনেড ও বোমা হামলা করেছে।

এসময় অন‍্যান‍্যের মধ‍্যে মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোস্তফা কামাল, চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম‍্যান রিয়ার এডমিরাল এম শাহজাহান, মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম‍্যান রিয়ার এডমিরাল মোহাম্মদ মুসা, পায়রা বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম‍্যান রিয়ার এডমিরাল মোহাম্মদ সোহায়েল, বিআইডব্লিউটিসি’র চেয়ারম‍্যান আহমদ শামীম আল রাজী, বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম‍্যান কমডোর গোলাম সাদেক, বাংলাদেশ শিপিং কর্পোরেশনের ব‍্যবস্থাপনা পরিচালক কমডোর এস এম মনিরুজ্জামান, নৌপরিবহন অধিদফতরের মহাপরিচালক কমডোর মো. নিজামুল হক, বাংলাদেশ স্থল বন্দর কর্তৃপক্ষের সদস‍্য (ট্রাফিক) মো. জাহাঙ্গীর কবির উপস্থিত ছিলেন।

 

জেনেভায় প্রতিবন্ধী সুরক্ষা সম্মেলনে তথ্যমন্ত্রী : প্রতিবন্ধীরাও দেশের উন্নয়নের অংশীদার

 

জেনেভা, (২৬ আগস্ট):

জাতীয় উন্নয়ন পরিকল্পনায় প্রতিবন্ধিতাযুক্তদের অন্তর্ভুক্ত করায় বাংলাদেশে আজ তাঁরাও উন্নয়নের অংশীদার বলেছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহ্‌মুদ।

গতকাল সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় শুরু হওয়া দু’দিনের জাতিসংঘের কনভেনশন অন দ্য রাইটস অব পারসনস উইথ ডিজ্যাবিলিটিস বিষয়ক কমিটির ২৭তম অধিবেশনের প্রথম দিনে দেশভিত্তিক পর্যালোচনায় বাংলাদেশের অবস্থান তুলে ধরে মন্ত্রী একথা বলেন।

ড. হাছান বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশে প্রতিবন্ধিতাযুক্ত সবাইকে দারিদ্র্যমোচনসহ সকল জাতীয় উন্নয়ন পরিকল্পনায় অন্তর্ভুক্ত করার বিশেষ গুরুত্ব দিয়েছেন। পাশাপাশি তাঁর কন্যা সায়মা ওয়াজেদ জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে অটিজম এবং স্নায়বিক ও মানসিক ব্যাধির চিকিৎসা, সেবা উন্নয়ন, গবেষণা ও এ বিষয়ে জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে নিরলস কাজ করছেন। 

প্রতিবন্ধিতাযুক্তদেরকে সমাজের মূল ধারায় নিয়ে আসতে সরকার প্রতিবন্ধীভাতা বৃদ্ধি, প্রতিবন্ধী শিশুদের জন্য অন্তর্ভুক্তিমূলক শিক্ষার সম্প্রসারণ, প্রতিবন্ধীবান্ধব অবকাঠামো নির্মাণ ও তাদের কাছে প্রয়োজনীয় তথ্যসুলভ করতে তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করছে, উল্লেখ করেন তিনি।

এ বিষয়ে দেশের আইন-কানুনের বিবরণে তথ্যমন্ত্রী বলেন, শেখ হাসিনার সরকার প্রণীত প্রতিবন্ধী মানুষের অধিকার ও সুরক্ষা আইন ২০১৩, নিউরো-ডিভালপমেন্টাল ডিজ্যাবিলিটিস প্রটেকশন ট্রাস্ট অ্যাক্ট ২০১৩, বাংলাদেশ রিহ্যাবিলিটেশন কাউন্সিল অ্যাক্ট ২০১৮, মানসিক স্বাস্থ্য আইন ২০১৮ এ সকল আইন প্রয়োগের মাধ্যমে প্রতিবন্ধিতাযুক্তদের অধিকার নিশ্চিত করতে সরকার কাজ করছে। 

এসময় এতিম অটিস্টিক শিশুদের দায়িত্ব সরকার বহনে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণার কথাও অধিবেশনে জানান মন্ত্রী হাছান। তিনি বলেন, শুধু তাই নয়, বাংলাদেশে সাময়িকভাবে আশ্রয়প্রাপ্ত মিয়ানমারের রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর জন্য নোয়াখালীর ভাসানচরে নির্মিত ক্যাম্পেও প্রতিবন্ধীবান্ধব অবকাঠামো নির্মাণ করা হয়েছে। 

মন্ত্রী ড. হাছান মাহ্‌মুদের বক্তব্য শেষে তাঁর নেতৃত্বে বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলের সদস্যরা কনভেনশন কমিটি ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন। উল্লেখ্য, বাংলাদেশ ২০০৭ সালে প্রতিবন্ধিতাযুক্তদের অধিকার রক্ষা সংক্রান্ত জাতিসংঘের কনভেনশনে স্বাক্ষর করেছে এবং নিয়মিত দেশভিত্তিক পর্যালোচনার অংশ হিসেবে বাংলাদেশ বিষয়ক প্রথম পর্যালোচনাটি এ অধিবেশনে অনুষ্ঠিত হয়।

জেনেভায় জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত মোঃ মুস্তাফিজুর রহমান, সমাজকল্যাণ সচিব মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, জাতিসংঘে দেশের উপ-স্থায়ী প্রতিনিধি সঞ্চিতা হক ও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা অধিবেশনে যোগ দেন।

২৫-২৬ আগস্ট সম্মেলন শেষে ২৭ আগস্ট ঢাকার উদ্দেশে রওনা হবেন তথ্যমন্ত্রী। 

 

নতুন শিক্ষাক্রমে শিক্ষকের ভূমিকায় পরিবর্তন আসছে : শিক্ষামন্ত্রী

 

পাবনা, ১১ ভাদ্র (২৬ আগস্ট) :

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, নতুন শিক্ষাক্রমে শিক্ষকের ভূমিকায় পরিবর্তন আসছে। শুধুমাত্র শ্রেণিকক্ষে পাঠদানে সীমাবদ্ধ না থেকে  শিক্ষকবৃন্দ একাধারে   সহায়ক এবং পথপ্রদর্শকেরও  ভূমিকা পালন করবেন।  নতুন  শিক্ষাক্রমে মুখস্ত নির্ভরতার পরিবর্তে শিক্ষা হবে আনন্দময়। পরীক্ষা ভীতিও  থাকবে না, ‌এ শিক্ষাক্রম হবে  অভিজ্ঞতানির্ভর। 

মন্ত্রী গতকাল পাবনা এডওয়ার্ড কলেজের আয়োজনে ‘শিক্ষার গুণগত মান উন্নয়ন’ শীর্ষক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, নিজেদের স্বার্থে অতীতের সরকারগুলো ঔপনিবেশিক শিক্ষাব্যবস্থা চালু রেখে একটি বিষাক্ত পরিবেশ তৈরি করে। বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এসে কেরানি তৈরির শিক্ষা ব্যবস্থা থেকে বের হয়ে  বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নির্ভর শিক্ষা ব্যবস্থা চালু করেন।  তিনি বলেন, ২০৩০ সালের মধ্যে এসডিজি বাস্তবায়নে দক্ষ ও  প্রযুক্তিনির্ভর মানবসমাজ গঠনে এবং ২০৪১ সালের উন্নত সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গঠনে শিক্ষা ব্যবস্থাকে ট্রান্সফর্ম করেছে সরকার। এ শিক্ষাক্রম বাস্তবায়নে সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।

কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ হুমায়ুন কবিরের সভাপতিত্বে সভায় উপস্থিত ছিলেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মোঃ মশিউর রহমান, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. হাফিজা খাতুন ও উপ উপাচার্য ড. এস এম মোস্তফা কামাল প্রমুখ।

 

Read us@googlenews

 

Social

More News
© Copyright: 2020-2022

Bangladesh Beyond is an online version of Fortnightly Apon Bichitra 

(Reg no: DA 1825)

Developed By Bangladesh Beyond