[Valid RSS]
June 24, 2022, 9:54 pm
Headlines
EU’s next potential sanctions target revealed Forging High-quality Partnership For a New Era of Global Development : Xi Jinping পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে ১০০ টাকা মূল্যমানের স্মারক নোট ২৪ জুন এক নজরে বাংলাদেশ পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতির বাণী  Pentagon unveils new Ukraine weapons shipment Germany warns entire industries could stop due to gas shortage ২৪ জুন কোভিড-১৯ সংক্রান্ত সর্বশেষ প্রতিবেদন Japan wants more people-to-people cultural bond with Bangladesh হাওর এলাকার আশংকাজনকহারে জলাভূমি হ্রাস বন্যার ভয়াবহতা বাড়িয়ে দিচ্ছে : আইপিডি PM to open Padma Bridge on June 25  EU and NATO forming coalition ‘for war against Russia’ : Lavrov President, PM greet all involved with Padma Bridge project অবিলম্বে দেশে ভোজ্যতেলের দাম সমন্বয়ের দাবি ক্যাব এর ২১ জুন এক নজরে বাংলাদেশ ২৩ জুন কোভিড-১৯ সংক্রান্ত সর্বশেষ প্রতিবেদন AL means independence, developed Bangladesh: PM  imo steps in to facilitate flood victims LafargeHolcim signs agreement with Swisscontact Bangladesh to support waste management in MSMEs তামাকের দাম বাড়াতে মন্ত্রিপরিষদ সচিবকে ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ ৯৭ সাংসদের
Treanding
EU’s next potential sanctions target revealed Forging High-quality Partnership For a New Era of Global Development : Xi Jinping পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে ১০০ টাকা মূল্যমানের স্মারক নোট ২৪ জুন এক নজরে বাংলাদেশ পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতির বাণী  Pentagon unveils new Ukraine weapons shipment Germany warns entire industries could stop due to gas shortage Japan wants more people-to-people cultural bond with Bangladesh হাওর এলাকার আশংকাজনকহারে জলাভূমি হ্রাস বন্যার ভয়াবহতা বাড়িয়ে দিচ্ছে : আইপিডি EU and NATO forming coalition ‘for war against Russia’ : Lavrov অবিলম্বে দেশে ভোজ্যতেলের দাম সমন্বয়ের দাবি ক্যাব এর ২১ জুন এক নজরে বাংলাদেশ imo steps in to facilitate flood victims LafargeHolcim signs agreement with Swisscontact Bangladesh to support waste management in MSMEs তামাকের দাম বাড়াতে মন্ত্রিপরিষদ সচিবকে ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ ৯৭ সাংসদের Prerona Foundation-Bengal Meat collaborates NATO chief ‘cannot guarantee’ membership for Finland and Sweden Energypac Sponsors 4th Dhaka Automotive Show 2022 Putin’s Global Ratings Drop to 20-Year Low : Pew Australian envoy expects Padma Bridge to enhance regional growth

UN must Pressurize Myanmar to Return Rohingya : Rezaul Karim Chowdhury

Bangladesh Beyond
  • Updated on Tuesday, May 24, 2022
  • 85 Impressed

UN must Pressurize Myanmar to Return Rohingya : Rezaul Karim Chowdhury

 

Dhaka May 24 2022 :

 

Plastic in Rohingya Camps Must Be Banned.

Recently I got an opportunity to meet with Philip Grandi, the United Nations High Commissioner (HC) for Refugees, while he was visiting Cox’s Bazar, Bangladesh. I raised some crucial issues related to the Rohingya crisis.

My first point was, we do like to express frustration is that there are little of political pressure from UN and big countries in respect of compelling Myanmar to take their citizen back or for voluntary repatriation. Bangladesh is facing daunting challenge to accommodate 1.1 million Rohingya refugees. Our Prime Minister has a plan and already invested approximately $ 33 billion in around 70 projects for developing infrastructure in Cox’s Bazar, we the Bangladeshis and Cox’s Bazar local people want to take benefit of these. We consider voluntary repatriation is the only the solution, we do not like to think any other alternatives. We also ensure that, as our Prime Minister said that, as we feed 160 million people, we can also feed 1 million refugees until the repatriation happens.

Our natural resources are in danger in Cox’s Bazar, we do like to propose two simple actions, first banning of using plastic in camps, and there are lot of alternatives to plastics. You know very well that plastic will damage our land fertility. Next one is to limit using of ground water for shallow and deep tube wells, as we need to preserve our water for our future generations. I know that there are information that in Ukhiya, host community members have to go for more in deep to install shallow tube wells.  We should give emphasize for using of surface water, especially to use the water of Naf river. HC Filippo Grandi, encourage the idea of banning plastic use in camps, regarding surface water use he talked something with Mr Johannes the Country Representative of UNHCR in Bangladesh.

We gave thanks to UN agencies and all NGOs that in a quickest time, they have succeeded a level of greenery restoration in camp areas. Almost all donors’ representatives who are based in Cox’s Bazar, Sector Heads and ISCG Senior Coordinator were there. I hope in future they will announce concreate plan to preserve natural resources of our Cox’s Bazar.

I have also pleaded for “technical assistance and know-how” transferring to locals as there are numbers of expatriate working in Cox’s Bazar in respect of Rohingya response management. As a local, we consider these as opportunities, and it is the reason we do like to plea for localization, so that it will assist the capacity development of locals and local organizations and they can take leadership in response management. It is the SEG (Strategic Executive Group) who have prepared the Localization Task Force (LTP) and prepared the localization road map during the period of 2020 and 2021, the LTF was led by UNDP and IFRC. I hope ISCG should take lead to implement the road map, consult the road map.

Cox’s Bazar is the district that has little density of local civil society growth comparison to other districts of the country. We believe that it is the local civil societies who are respectful to democracy and human rights, they are in the best places to respect human dignity of the Rohingya refugees, they can take whole of the society approach. We feel there are needs of pooled fund in this respect. Bangladesh has best example of vibrant civil society and also democratic ownership of pooled fund and civil societies, so we do not like to see any monopolization in this regard.

 

 

 

 

জাতিসংঘের উচিৎ সবার আগে মায়ানমার সরকারের উপর রোহিঙ্গাদেরকে ফিরিয়ে নিতে ব্যাপক চাপ প্রয়োগ করা : রেজাউল করিম চৌধুরী

 

ঢাকা ২৪ মে ২০২২ :

 

পরিবেশ বাঁচাতে অবিলম্বে রোহিঙ্গা শিবিরগুলোতে প্লাস্টিক ব্যবহার বন্ধ করতে হবে।

সম্প্রতি কক্সবাজারে সফরে আসা জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক হাইকমিশনার (এইচসি) মিঃ ফিলিপ গ্রান্ডির সাথে কথা বলার সুযোগ হয়েছিলো আামার। রোহিঙ্গা সংকট সমাধান এবং সংশ্লিষ্ট আরও কিছু বিষয়ে কিছু সুনির্দিষ্ট বক্তব্য আমি তাঁর কাছে তুলে ধরেছি।

প্রথমেই আমরা হতাশা প্রকাশ করতে চাই যে, মিয়ানমার সরকারকে তার নাগরিকদের ফিরিয়ে নিতে বা তাঁদের স্বেচ্ছায় প্রত্যাবাসনের পরিবেশ তৈরির ক্ষেত্রে বাধ্য করার বিষয়ে জাতিসংঘ এবং এর বড় সদস্য দেশগুলির কাছ থেকে রাজনৈতিক চাপ এখনো খুবই অপ্রতুল। দশ লাখের বেশি রোহিঙ্গা শরণার্থীকে আশ্রয় দিতে গিয়ে বাংলাদেশ একটি কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি। আমাদের প্রধানমন্ত্রীর একটি পরিকল্পনা রয়েছে এবং ইতিমধ্যে সরকার কক্সবাজারে অবকাঠামো উন্নয়নের জন্য প্রায় ৭০টি প্রকল্পে ৩৩ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করেছেন, আমরা বাংলাদেশি এবং কক্সবাজারের স্থানীয় জনগণ এর সুবিধা নিতে চাই। আমরা রোহিঙ্গা শরণার্থীদের স্বেচ্ছায় প্রত্যাবাসনকেই একমাত্র স্থায়ী সমাধান মনে করি; এক্ষেত্রে অন্য কোনো বিকল্প চিন্তার সুযোগ নেই। আমরা উল্লেখ করতে চাই যে, আমাদের প্রধানমন্ত্রী বলেছেন- আমরা যেমন ১৬ কোটি মানুষের জন্য খাবার যোগাড় করতে পারলো, প্রত্যাবাসন না হওয়া পর্যন্ত আমরা ১০ লাখ শরণার্থীকেও খাওয়াতে পারবো।

আমাদের সম্পদ, কক্সবাজারের প্রাকৃতিক সম্পদ ঝুঁকিতে পড়েছে। এই সংকট সমাধানে আমরা দুটি সহজ কিন্তু কার্যকর পদক্ষেপের প্রস্তাব করতে চাই- প্রথমত রোহিঙ্গা শিবিরগুলোতে প্লাস্টিক ব্যবহার নিষিদ্ধ করা, কারণ প্লাস্টিকের অনেক বিকল্প রয়েছে। প্লাস্টিক আমাদের জমির উর্বরতা নষ্ট করছে। দ্বিতীয়ত: অগভীর এবং গভীর নলকূপের মাধ্যমে ভূগর্ভস্থ পানি ব্যবহার বন্ধ করা। আমাদের ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য আমাদের বিশুদ্ধ পানীয় জল সংরক্ষণ করতে হবে। উখিয়ায় ইতিমধ্যে নলকূপ স্থাপনের স্থানীয় জনগোষ্ঠীকে তুলনামূলকভাবে গভীরে পানি খুঁজতে হচ্ছে বললে আমরা জানতে পারছি। এ সমস্যা সমাধানে ভূ-পৃষ্ঠের পানি ব্যবহারের উপর, বিশেষ করে নাফ নদীর পানি ব্যবহারের উপর জোর দিতে হবে।
এইচসি ফিলিপ গ্র্যান্ডি রোহিঙ্গা শিবিরগুলোতে প্লাস্টিক ব্যবহার নিষিদ্ধ করার ধারণাকে উৎসাহিত করতে, ভূ-পৃষ্ঠের পানির ব্যবহার সম্পর্কে বাংলাদেশে ইউএনএইচসিআর-এর কান্ট্রি রিপ্রেজেন্টেটিভ মিঃ জোহানেসের সাথে আলোচনা করেছেন।
দ্রুত সময়ের মধ্যে রোহিঙ্গা শিবির এলাকায় সবুজায়ন কর্মসূচি বাস্তবায়নে সফলতার জন্য আমরা জাতিসংঘের বিভিন্ন অঙ্গসংস্থা এবং সব ধরনের এনজিওকে ধন্যবাদ জানাই। সম্প্রতি আলোচনায় কক্সবাজারে কর্মরত প্রায় সব দাতাসংস্থার প্রতিনিধি, সেক্টর প্রধানবৃন্দ এবং আইএসসিজি সিনিয়র কো-অর্ডিনেটর উপস্থিত ছিলেন। আমি আশাকরি, ভবিষ্যতে তারা আমাদের কক্সবাজারের প্রাকৃতিক সম্পদ সংরক্ষণে একটি সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা ঘোষণা করবেন।
আমি প্রযুক্তিগত সহায়তার জন্য অনুরোধ করেছি এবং স্থানীয়দের কাছে কীভাবে সেই প্রযুক্তিগত দক্ষতা স্থানান্তর করা যায় জানানোর জন্য অনুরোধ করেছি, কারণ রোহিঙ্গা কর্মসূচি ব্যবস্থাপনায় কক্সবাজারে বেশ কয়েককজন বিদেশি কাজ করছেন। স্থানীয় হিসাবে, আমরা এইগুলিকে সুযোগ হিসাবে বিবেচনা করি, এবং এই কারণেই আমরা স্থানীয়করণের জন্য অনুরোধ করতে চাই। এই স্থানীয়করণ স্থানীয়দের এবং স্থানীয় সংস্থাগুলির সক্ষমতা বিকাশে সহায়তা করবে এবং আশা করি একদিন তারা স্থানীয় পর্যায়ে দুর্যোগে সাড়াদান কর্মসূচিতে নেতৃত্ব প্রদান করবে। স্ট্র্যাটেজিক এক্সিকিউটিভ গ্রুপ স্থানীয়করণ টাস্ক ফোর্স এবং ২০২০ এবং ২০২১-এর জন্য স্থানীয়করণের রোডম্যাপ তৈরি করেছে। খঞঋ এর নেতৃত্বে ছিল টঘউচ এবং ওঋজঈ। আমি আশা করি ওঝঈএ এই রোডম্যাপ বাস্তবায়নে নেতৃত্ব দেবে এবং রোডম্যাপ নিয়ে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে পরামর্শ করবে।
কক্সবাজার এমন একটি জেলা যেখানে দেশের অন্যান্য জেলার তুলনায় স্থানীয় সুশীল সমাজ সংগঠন বৃদ্ধির প্রবণতা কম। আমরা বিশ্বাস করি যে স্থানীয় নাগরিক সমাজ গণতন্ত্রের প্রতি শ্রদ্ধাশীল এবং মানবাধিকার ও রোহিঙ্গা শরণার্থীদের মানবিক মর্যাদাকে সম্মান করার সর্বোত্তম ক্ষেত্র। আমরা মনে করি, এই ক্ষেত্রে বিশেষ তহবিল বকা পুল ফান্ডের প্রয়োজন রয়েছে। বাংলাদেশে একটি সক্রিয় ও সচেতন নাগরিক সমাজ রয়েছে এবং এই ধরনের তহবিলে নাগরিক সমাজের গণতান্ত্রিক মালিকানা রয়েছে, তাই আমরা এই বিষয়ে কারো কোনও একচেটিয়াত্ব দেখতে চাই না।

Social

More News
© Copyright: 2020-2022

Bangladesh Beyond is an online version of Fortnightly Apon Bichitra 

(Reg no: DA 1825)

Developed By Bangladesh Beyond